kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অধিগ্রহণকৃত জমির মূল্য না পেয়ে একক প্রতিবাদ

নাটোর প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ১৬:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অধিগ্রহণকৃত জমির মূল্য না পেয়ে একক প্রতিবাদ

উচ্চ আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও অধিগ্রহণকৃত জমির মূল্য না পেয়ে নিজের শরীরে প্ল্যাকার্ড বেঁধে নাটোরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে একাই প্রতিবাদ জানালেন এস এম তারেকুজ্জামান উজ্জল নামে এক ব্যক্তি।

নাটোরের লালপুর উপজেলার গোপালপুর এলাকার ওই ব্যক্তিকে মঙ্গলবার দুপুরে নাটোরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে একাই প্রতিবাদ জানাতে দেখে উৎসুক মানুষের ভিড় জমে যায়।

এ সময় তারেকুজ্জামান উজ্জল অভিযোগ করেন, ২০০৫ সালে লালপুর উপজেলা পরিষদ দপ্তর স্থাপনের সময় তার ৭৩ শতক জমি অধিগ্রহণ করে সরকার। ওই বছরই ২০ শতক জমির মূল্য ২৩ লাখ ৪৯ হাজার ৯৯৯ টাকা পরিশোধ করলেও বাকি ৫৩ শতক জমির মূল্য পরিশোধ করা হয়নি। বিষয়টি নিয়ে তিনি ২০১৫ সালে হাইকোর্টে রিট করলে আদালত জমির মূল্য পরিশোধ অথবা জমি ফেরত দেওয়ার নির্দেশ দেন। এই নির্দেশ না মানায় হাইকোর্ট পুনরায় ২০১৭ সালে ৫ ডিসেম্বর বিবাদীদের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না ৪ সপ্তাহের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলেন। কিন্তু এখনো তারেক জমির মূল্য বুঝে পাননি।

তারেককুজ্জামান উজ্জল অভিযোগ করেন, জমির মূল্য বুঝে পাওয়ার জন্য বছরের পর বছর প্রশাসনের দরজায় ঘুরেছি। কিন্তু গত ১৪ বছরেও আমি কোনো প্রতিকার পাইনি। আদালতে গিয়েও প্রতিকার পাচ্ছি না। আমি অবলম্বে হাইকোর্টের রায়ের বাস্তবায়ন চাই।

এ বিষয়ে নাটোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শরিফুন্নেছা বলেন, এই জমি অধিগ্রহণের কোনো বরাদ্দ ছিল না। কমটেম্পট অব কোর্ট নোটিশ পাওয়ার পরে তারা বরাদ্দরে জন্য উচ্চ পর্যায়ে আবেদন করে বরাদ্দ এনছেন। জমি অধিগ্রহণের কাজ প্রায় শেষের দিকে। অল্পদিনের মধ্যে তিনি ক্ষতিপূরনের টাকা পেয়ে যাবেন।

তিনি বলেন, মালিকানা সংক্রান্ত আইনগত জটিলতার কারণে দাবিকৃত জমির ওপরে উপজেলার স্থাপনা তৈরি করা হলেও জমি অধিগ্রহণ করা যায়নি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা