kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বোরহানউদ্দিনে সংঘর্ষের জের

হাটহাজারী থানায় হামলা, মহাসড়ক অবরোধ

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০৩:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাটহাজারী থানায় হামলা, মহাসড়ক অবরোধ

ভোলার বোরহানউদ্দিনে ফেসবুক হ্যাক করে মিথ্যাচার চালিয়ে সংঘর্ষের ঘটনার জেরে গতকাল রবিবার হাটহাজারীতে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে। হেফাজতে ইসলামের প্রধান কেন্দ্র দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদরাসার (হাটহাজারী মাদরাসা) ছাত্রদের বিক্ষোভ মিছিল থেকে হাটহাজারী মডেল থানা ঘেরাও করে সেখানে ইট-পাথর ছুড়ে কাচ ভাঙচুর করা হয়। অবরোধ করা হয় চট্টগ্রাম-হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি মহাসড়ক। রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টা মহাসড়ক অবরুদ্ধ থাকায় দুই পার্বত্য জেলাসহ উত্তর চট্টগ্রামের শত শত গাড়িতে আটকে পড়ে হাজার হাজার যাত্রীকে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

হাটহাজারী মাদরাসা কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে রাত সোয়া ৮টার দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে বিক্ষোভকারীরা। তবে রাতে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পরিস্থিতি ছিল থমথমে। রাত ৯টা পর্যন্ত এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়নি বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে। পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানিয়েছেন হাটহাজারী মডেল থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর।

বিকেল ৫টার দিকে হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্রদের বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি খাগড়াছড়ি সড়কে হাটহাজারী বাজার ও থানা হয়ে যাওয়ার সময় থানা ভবন লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় পুলিশকে কোনো প্রতিরোধ করতে দেখা যায়নি। হামলায় থানার সামনের বেশ কিছু কাচ ভেঙে যায়। এর পর থেকে হাটহাজারী বাজারসহ সদরের প্রায় সব দোকান বন্ধ হয়ে যায়। বিক্ষোভকারীরা মিছিল নিয়ে উপজেলা সদরের বাসস্টেশন কাচারি সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে তারা চট্টগ্রাম-হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি মহাসড়কের ওপর দাঁড়িয়ে মাগরিবের নামাজ পড়ে। এরপর হাটহাজারী বাসস্টেশনের জিরো পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করে। আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায়।

এদিকে দফায় দফায় হাটহাজারী মাদরাসা থেকে মাইকে ঘোষণা দিয়ে হেফাজতের মহাসচিব মাওলানা জুনাইদ বাবুনগরী বিক্ষোভকারী ছাত্রদের মাদরাসার ভেতরে চলে যাওয়ার জন্য বারবার ঘোষণা দিলেও তারা মহাসড়ক ছেড়ে যায়নি। বাবুনগরী মাইকে ঘোষণায় বলেন, ‘আজকে বিক্ষোভ মিছিলের জন্য কোনো সিদ্ধান্ত নেই। আপনারা মাদরাসা ক্যাম্পাসে ফিরে আসুন।’ একপর্যায়ে মাদরাসার জ্যেষ্ঠ শিক্ষকদের উদ্যোগে জুনাইদ বাবুনগরীর আহ্বানে বিক্ষোভকারীরা রাত সোয়া ৮টার দিকে অবরোধস্থল ছেড়ে চলে যায়। আস্তে আস্তে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

থানার ওসি বেলাল উদ্দিন জাহাঙ্গীর রাত ৯টায় কালের কণ্ঠকে বলেন, বিক্ষোভকারীরা থানায় ইটপাটকেল মেরেছে। কোনো আহত বা গ্রেপ্তার নেই। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা