kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

শিশু অপহরণে সন্দেহ বাবা-মা ঘিরে!

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ১৮:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিশু অপহরণে সন্দেহ বাবা-মা ঘিরে!

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে মারুফ হোসেন (১১) নামে এক শিশুকে অপহরণের ঘটনায় পুলিশ সন্দেহ করছে তার বাবা-মাসহ স্বজনদের। অপহরণ ঘটনার দশদিন পর শনিবার পুলিশ শিশুকে উদ্ধার করেছে। তারপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অআটক করা হয়েছে বাবা মাসহ ৩ জনকে।

সূত্র জানায়, বীরগঞ্জ উপজেলার মাহানপুর গ্রামের নুরুল হকের স্ত্রী হাসিনা আক্তার গত ৯ সেপ্টেম্বর দিনাজপুর নারী শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে  একটি মামলা দায়ের করেন। তিনি অভিযোগে জানান, তার ছেলে মারুফ হোসেনকে অপহরণ করা হয়েছে। মারুফ নওপাড়া স্কুল এন্ড কলেজের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র। এ মামলায় আসামি করা হয় প্রতিবেশি বাদশা আলম ও তার স্ত্রী রোজিনা বেগমকে।  আদালতের নির্দেশে বীরগঞ্জ থানা গত ১৩ সেপ্টেম্বর মামলাটি গ্রহণ করে।

এদিকে মামলা গ্রহনের পর পুলিশ তদন্তের শুরুতে গ্রেপ্তার করে আসামি বাদশা আলমকে । কিন্তু তাতে মারুফের খোঁজ পাওয়া যায়নি। জিজ্ঞাসাবাদের পর বাদশা আলমকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। তদন্তের এক পর্যায়ে পুলিশ গত শনিবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বীরগঞ্জ উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া মোড় থেকে শিশু মারুফকে উদ্ধার করে।

মামলার তদন্ত কর্মকতা এসআই তহিদুল ইসলাম বলেন, ' শিশু মারুফ হোসেনকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুর পিতা নুরুল হক, মা হাসিনা আক্তার ও আলী আকবর নামে একজনকে থানায় আনা হয়েছে। অপহরণ ঘটনাটি সাজানো কি না তা জানার চেষ্টা চলছে।'

অপহরণ মামলার অন্যতম আসামি পলাতক রোজিনা বেগম মোবাইল ফোনে জানান, মিথ্যা অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। নারী নির্যাতন ও মারপিটের ঘটনায় তিনি একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। তাতে আসামি করা হয় প্রতিবেশি নুরুল হক ও তার স্ত্রী হাসিনা আক্তারসহ বেশ কয়েকজনকে। এরই পাল্টা মামলা হিসেবে তারা ছেলেকে লুকিয়ে রেখে অপহরনের মামলা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা