kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সদরঘাট টার্মিনালে লঞ্চের পাকঘরে বাবুর্চিকে কুপিয়ে হত্যা

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সদরঘাট টার্মিনালে লঞ্চের পাকঘরে বাবুর্চিকে কুপিয়ে হত্যা

ফাইল ছবি

ঢাকার সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে লঞ্চের পাকঘরে বাবুর্চিকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত বাবুর্চির নাম মো. রুবেল মুন্সি (২২)। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল (শুক্রবার) দুপুরে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালের ২নং ঘাটে কীর্তনখোলা-২ নামক লঞ্চের পাক ঘরে। নিহতের গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার সদর থানার শিয়ালী এলাকায়। তার বাবার নাম আব্দুল গনি মুন্সি। এ ঘটনায় হত্যার অভিযোগ উঠেছে একই লঞ্চের হোটেল বয় ইসতির বিরুদ্ধে। ঘটনার পর পর ইসতি (২০) দৌড়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

কীর্তনখোলা-২ লঞ্চের কর্মচারী আবু তালেব জানান, নিহত রুবেল এবং হত্যাকারী ইসতি লঞ্চের হোটেলে কাজ করতেন। নিহত রুবেল ছিলেন বাবুর্চি আর ইসতি হোটেল বয়। ঘটনার আগে হোটেলের পাক ঘরে হোটেলের সকল কর্মচারী একত্রে বসে রান্নার ব্যবস্থা করছিলেন। নিহত বাবুর্চি রুবেল বয় ইসতিকে তরকারী কাটার জন্য বলেন। ইসতি বাবুর্চির কথামত তরকারী কাটতে না পারলে বাবুর্চি রুবেল তাকে গালাগালি করতে থাকে। এক পর্যায়ে ইসতি রাগের মাথায় তরকারি কাটার বটি দিয়ে রুবেলকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। বটির কোপের আঘাতে রুবেল হোটেল মেঝেতে পড়ে যায় এবং প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকলে তখন ইসতি দৌড়ে পালিয়ে যায়। এ সময় কয়েকজন স্টাফ তার পিছু নিয়ে ধরতে পারেনি।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এস আই মো. ইমরান উকিল জানান, ঘটনার খবর পেয়ে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালের ২নং ঘাটে কীর্তনখোলা-২ লঞ্চের পাকঘরের ভেতরে প্রবেশ করে নিহত বাবুর্চির লাশ পড়ে থাকতে দেখি। পড়ে লাশের সুরতহাল তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠাই। এই ঘটনায় ওই লঞ্চের চারজন স্টাফকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে এসেছি। প্রাথমিকভাবে যা জানতে পেরেছি তা হচ্ছে তরকারি কাটা নিয়ে বাবুর্চি এবং হোটেল বয়ের মধ্যে তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে বয় বাবুর্চিকে বটি দিয়ে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। হত্যাকারী ইসতি গ্রেপ্তার হলে এর আসল রহস্য জানা যাবে। এ ব্যাপারে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা