kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সোনারগাঁয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০২:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সোনারগাঁয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার পাকুন্দা এলাকায় এক মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা চালিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় আশিকুর রহমান বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়, উপজেলার জামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবীর বুধবার বিকেলে স্থানীয় সনাতন ধর্মের লক্ষ্মী পূজার অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবু জাফর চৌধূরী বিরুর সমর্থক সামসুদ্দিন খান আবু, লিপন চৌধুরী ও আমীর হোসেন পাকুন্দা পাকা রাস্তার ওপর তার গতি রোধ করে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে।

এ সময় মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবীর প্রতিবাদ করলে ক্ষীপ্ত হয়ে সামসুদ্দিন খান আবু, লিপন চৌধুরী, আমীর হোসেন, মামুন মিয়া, মোতালিব মিয়া ওরফে টারজান, আমিনুল ইসলাম ও মোক্তারসহ ১৫/২০ জন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এলোপাতারীভাবে পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে। তার ডাকচিৎকারে তার ছেলে রোমান ও রুবেল তাকে বাঁচাতে এলে সন্ত্রাসীরা তাদেরকেও কুপিয়ে ও পিটিয়ে রোমান ও রুবেলকে মারাত্মকভাবে রক্তাক্ত জখম করে। আশপাশের লোকজন তাদের রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন হুমকি দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। 

এ সময় স্থানীয়দের সহায়তায় আহত মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবীরসহ তার ছেলেদের চিকিৎসার জন্য বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে রোমানের অবস্থা আশঙ্কা জনক। এ বিষয়ে আহত মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবিরের মেয়ের জামাই আশিকুর রহমান রানা বাদী হয়ে বুধবার রাতে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আহত মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন কবীর বলেন, রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তার ও আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ডা. বিরুর লোকজন আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করেছে। আমার ছেলে রুমান মিয়া বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছে। আমি এর ন্যায় বিচার চাই। অপরদিকে সামসুদ্দিন খান আবুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মুক্তিযোদ্ধা হুমায়ুন মেম্বার সহ তার পরিবারের উপর হামলার ঘটনার সঙ্গে আমরা জড়িত নই।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মনিরুজ্জামান জানান, মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলার ঘটনায় থানায় একটি মামলা নেওয়া হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা