kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ছিনতাইকারীদের হামলায় আহত

মৃত্যুর কাছে হার মানলেন তৌকির

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৪১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মৃত্যুর কাছে হার মানলেন তৌকির

গত শুক্রবার দুপুরে ময়মনসিংহের ত্রিশালের তরফদারপাড়া জামে মসজিদের পেছনে স’মিল শ্রমিক তৌকির আহমেদের স্মার্টফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে স্থানীয় চার মাদকসেবী। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে তৌকিরকে রড ও ইট দিয়ে পেটে আঘাত করে ছিনতাইকারীরা। ওই ঘটনার পর পাঁচদিন নিখোঁজ থাকেন তিনি। বুধবার রাতে বাড়ি ফেরেন তিনি। তবে ভালো করে কথা বলতে পারছিলেন না।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পর ওই ঘটনার বিবরণ দেওয়ার দুই ঘণ্টা পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মাতৃ ও পিতৃহারা ওই যুবকের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান স্থানীয়রা। মারা যাওয়ার আগে তার মোবাইলে ভিডিও করে হত্যাকারীদের নাম উল্লেখ করে রেখেছেন। 

জানা যায়, পৌরশহরের ৭নং ওয়ার্ডের তরফদারপাড়া জামে মসজিদের পেছনে গত শুক্রবার দুপুরে আবির, রিফাত, মমিন ও টিটু নামে স্থানীয় চার মাদকসেবী স’মিল শ্রমিক তৌকিরের পথরোধ করে তার স্মার্টফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। মোবাইলটি রক্ষা করতে ছিনতাইকারীদের সঙ্গে তৌকিরের ধস্তাধস্তি হয়। এ সময় ছিনতাইকারীদের মধ্যে আবির ইট দিয়ে ও মমিন রড দিয়ে তৌকিরের পেটে আঘাত করে। দৃশ্যটি স্থানীয় কয়েকজন দেখলেও ওরা মাদকসেবী বলে প্রতিবাদ করার সাহস দেখায়নি কেউ। ওই ঘটনার পর গত পাঁচদিন নিখোঁজ থাকেন তৌকির।

বৃহস্পতিবার সকালে তার বোন শারমিন তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। মোবাইল ফোন ছিনতাইকালে যে ঘটনা ঘটে তার বিবরণ শোনান বোনকে। তার দুই ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। পরে ময়নাতদন্ত শেষে সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার লাশ তার বাড়িতে নিয়ে আসেন স্বজনরা। মাতৃ ও পিতৃহারা ওই যুবকের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নামে।

স্থানীয়রা জানায়, চুরির মামলার এক ঘটনায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হলে ৩/৪ দিন আগে পুলিশের হাতে আটক হয়ে কারাগারে আছে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রিফাত ও টিটু।

ওয়ার্ড কমিশনার আবদুল্লাহ আল ফুয়াদ জানান, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে মাদক, ছিনতাই ও চুরির অনেক অভিযোগ আছে। 

তৌকিরের বোন শারমিন আক্তার জানান, মৃত্যুর আগে তৌকির মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনার ওই বিবরণ ও হত্যাকারীদের নাম বলে গেছে। রাতেই তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হবে।

ওসি আজিজুর রহমান জানান, নিহত তৌকিরের লাশ বাড়িতে নিয়ে আসার খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে সমস্ত বিষয় অবগত হয়েছি। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করবে বলে জানিয়েছে তার স্বজনরা।  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা