kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আদালতে জবানবন্দি

তুচ্ছ ঘটনায় আলম একাই ব্যবসায়ী বাবলুকে হত্যা করে

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তুচ্ছ ঘটনায় আলম একাই ব্যবসায়ী বাবলুকে হত্যা করে

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেনারেটর ব্যবসায়ী মাহবুবুল হক বাবলুকে (৫০) কিল ঘুষি ও লাথি মেরে আলম নামে এক ব্যক্তি একাই হত্যা করেছে। এরপর আলম নিজেই বাবলুকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখান থেকে হাসপাতালে নিয়ে মৃত্যু খবর শুনে পালিয়ে যায় আলম। 

বুধবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আলমের আদালতে দোষ স্বীকার জবানবন্দি দিয়েছেন আলম (৪৫)। এর আগে তাকে মঙ্গলবার বিকেলে ফতুল্লার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়। আলম (৪৫) ফতুল্লার তল্লা সুপারীবাগ এলাকার বেনু মিয়ার ছেলে।

মামলার তদন্তকারী অফিসার ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মিজানুর রহমানের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আলম একাই বাবলুকে হত্যা করেছেন। গত ৭ অক্টোবর রবিবার দিবাগত রাত ৩টায় মাহবুবুল হক বাবলু (৫০) হাজীগঞ্জ বাজারে জাফরের চায়ের দোকানে চা খেতে যায়। সেখানে আগে থেকেই বসেছিলেন আলম। এ সময় আলমকে কাজ করোনা ঘুরে ফিরে কি করো জিজ্ঞেস করে বাবলু। এ নিয়ে তর্কে জড়িয়ে আলম কয়েকটি ঘুষি দেয় বাবলুকে। এতে বাবলু মাটিতে পড়ে গেলে আলম আরো কয়েকটি লাথি দেয়।

এক পর্যায়ে বাবলু মাটিতে নিথর হয়ে পড়লে স্থানীয়রা আলমকে চাপ দেয় ডাক্তারের কাছে নিতে। তখন আলম ডাক্তারের কাছে না নিয়ে বাবলুকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। বাবলুর ভাইয়েরা বিষয়টি জানতে পেরে আলমকে তাদের বাসায় মারধর করে। এক পর্যায়ে আলম একাই রিকশায় উঠিয়ে বাবলুকে খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসে। পেছনে বাবলুর ভাইয়েরাও আসে। হাসপাতালের চিকিৎসক যখন বাবলুকে মৃত ঘোষণা করেন তখন আলম পালিয়ে যায়।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় নিহতের বড় ভাই জুয়েল বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় চারজনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা