kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

কিশোরগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ১৩:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিশোরগঞ্জে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মহিনন্দ ইউনিয়নের চংশোলাকিয়া গ্রামে স্বামীর বিরুদ্ধে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। স্ত্রীকে হত্যা করে স্বামী ইজিবাইকচালক সুমন মিয়া (২২) পালিয়ে গেছে। মঙ্গলবার রাত ১০টার পর কোনো একসময় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আজ বুধবার সকালে ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। 

হত্যাকাণ্ডের শিকার জুয়েনা মহিনন্দ ইউনিয়নের কাশোয়ারচর গ্রামের ওয়ালি নেওয়াজ মিয়ার মেয়ে। আর স্ত্রী হত্যায় অভিযুক্ত সুমন মিয়া চংশোলাকিয়া গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেল। পারিবারিক বিরোধের জের ধরে জুয়েনাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ ধারণা করছে। 

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে জুয়েনা তার শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া করে ঘুমাতে যান। তখনও তার স্বামী বাড়ি ফেরেনি। রাতে কোনো একসময় সুমন বাড়ি ফিরে স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যার পর মরদেহ কম্বল দিয়ে পেঁচিয়ে বিছানায় রেখে পালিয়ে যায়। সকালে বাড়ির লোকজন লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। 

জুয়েনার পরিবারের লোকজন জানায়, তিনি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিল। তার স্বামী সুমন জুয়া খেলত। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। ১০-১২ দিন আগে জুয়েনা রাগ করে বাবার বাড়ি চলে যান। গত শনিবার শ্বশুর আব্দুর রহিম তার ছেলের বউকে বুঝিয়ে বাড়ি নিয়ে আসেন। এর দুই দিন পরেই খুন হন জুয়েনা।

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক বলেন, গলায় কালো দাগ থাকায় জুয়েনাকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ ধারণা করছে। হত্যায় অভিযুক্ত সুমনকে ধরতে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবারে জন্য তার বাবা আব্দুর রহিমকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলার করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা