kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

গভীর রাতে নিবন্ধন ছাড়াই বিয়ে, কনের বাবাকে জরিমানা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গভীর রাতে নিবন্ধন ছাড়াই বিয়ে, কনের বাবাকে জরিমানা

সপ্তাহ আগে পাশের বাড়িতেই বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এই ভয়েই এবার দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুলছাত্রীর গভীর রাতে বিয়ের আয়োজন করে দোয়া পড়িয়েই বরের হাতে তুলে দেয় পরিবারের লোকজন। গত সোমবার রাতে এ ধরনের ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চর বেতাগৈর ইউনিয়নের চরখামটখালি গ্রামে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে ইউএনও ওই বাড়িতে গিয়ে কনের বাবা ইসলাম উদ্দিনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের মেয়ে রুমা আক্তার স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়ে। আজ মঙ্গলবার স্কুলছাত্রী রুমার বিয়ের দিন তারিখ ধার্য ছিল পাশের গফরগাঁও উপজেলার একটি গ্রামে।

জানা যায়, বিয়ের আয়োজন চললেও দিনভর কেউ তা জানতে পারেনি। সন্ধ্যার পর থেকেই এই আয়োজনরে অগ্রভাগে ছিলেন এলাকার ইউপি সদস্য আজিজুল হক ভুট্টো। এক পর্যায়ে বরের আগমন ঘটে রাত ১২টার দিকে। এ সময় এলাকা থেকে মোবাইল ফোনে খবর পান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রহিম সুজন।

তিনি জানান, তাৎক্ষনিক স্থানীয় ইউপি সদস্যকে নির্দেশ দেওয়া হয় বিয়ে বন্ধের। কিছুক্ষণ পর জানতে পারেন কনেকে নিয়ে বর চলে গেছে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য ভুট্টো জানান, তিনি ওই রাতে ঘুমিয়ে ছিলেন। বিয়ের ব্যাপারে কিছুই জানতেন না। এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ফোন পেয়ে তিনি বাড়িতে গিয়ে জানতে পারেন হুজুর দিয়ে দোয়া পড়িয়ে বিয়ে সম্পন্ন করেছে পরিবারের লোকজন।

নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রহিম সুজন বলেন, আজ মঙ্গলবার তিনি চরখামটখালির ওই বাড়িতে গিয়ে বাল্যবিয়ে দেওয়ার অপরাধে কনের বাবাকে ভ্রাম্যমাণ আদলতের মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা