kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মদ্যপ চালক শনাক্তে অভিযান বাগেরহাটে

ফকিরহাট-মোল্লাহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ২০:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মদ্যপ চালক  শনাক্তে অভিযান বাগেরহাটে

হাইওয়েতে চলাচল করা যানবাহনের চালকরা মদ্যপ কিনা তা শনাক্তে দেয়া হচ্ছে গুরুত্ব। এজন্য 'অ্যালকোহল ডিটেক্টর' নিয়ে মাঠে নেমেছে পুলিশ। রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে চালকের মুখে দেয়া হচ্ছে বিশেষায়িত যন্ত্রের পাইপ। চার সেকেন্ডেই মিলছে ফলাফল। মঙ্গলবার  দুপুরে বাগেরহাটে কাটাখালী হাইওয়ে থানা পুলিশের সদস্যদের দেখা গেছে এ ধরনের অভিযানে অংশ নিতে।

কাটাখালী হাইওয়ে থানার ওসি রবিউল ইসলাম কালের কন্ঠকে বলেন, 'অ্যালকোহল ডিটেক্টর নিয়ে আমরা এই প্রথম অভিযানে নেমেছি। মঙ্গলবার সকাল থেকে খুলনা-বাগেরহাট, মাওয়া ও মংলা সহাসড়কে চলাচল করা যানবাহনের ৩৮ জন চালককে পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে তাদের মধ্যে কাউকে মদ্যপ পাওয়া যায়নি।'

সংশ্লিষ্টরা জানান, অনেকটা ওয়াকিটকির মতো দেখতে অ্যালকোহল ডিটেক্টর। যন্ত্রের অগ্রভাগে থাকা পাইপ  মুখে দিয়ে ফুঁ দিতে হয়। এরপর চার সেকেন্ডের মধ্যেই যন্ত্রের মনিটরে ভেসে ওঠে ফলাফল। চালক মদ্যপ হলে শতাংশসহ ‘ইয়েস’ লেখা ওঠে। আর মদ্যপ না হলে ওঠে ‘নো’।  ফলাফল ইয়েস হলে তখন আইনী পদক্ষেপ নেয়া হবে। সেক্ষেত্রে চালকের নাম, লাইসেন্স নম্বর, গাড়ির নম্বর ও পরীক্ষাকারী পুলিশ কর্মকর্তার নাম, ব্যাজ নম্বর ও দায়িত্বরত ইউনিটের নাম লিখতে হবে যন্ত্রটিতে। এরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রিন্ট কপি বের হবে মামলার জন্য।

মঙ্গলবার দুপুর থেকে বাগেরহাটের ফকিরহাটে পুলিশ বিশষ এ অভিযানে নামলে উৎসুক মানুষের ভীড় জমে। চালকরা সহযোগিতা করেছেন হাইওয়ে থানা পুলিশের এ কাজে।

ফকিরহাট উপজেলার চেয়ারম্যান স্বপন দাশ বলেন, 'মাদকাসক্ত চালকরা যানবাহন চালালে সকলের জন্যই ঝুঁকি বেড়ে যায়। এ অভিযান অব্যাহত রাখার পাশাপাশি যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রন করা জরুরি।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা