kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিদ্যুৎ সংযোগের নামে হাতিয়ে নেওয়া টাকা ফেরত দিল প্রতারক

কলমাকান্দা নেত্রকোনা প্রতিনিধি   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ১৮:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিদ্যুৎ সংযোগের নামে হাতিয়ে নেওয়া টাকা ফেরত দিল প্রতারক

নেত্রকোনার কলমাকান্দায় বিদ্যুৎ সংযোগের নামে গ্রামের সহজ-সরল মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নেওয়া লক্ষাধিক টাকা জনসম্মুখে ফিরিয়ে দিয়েছেন মোস্তাক হোসেন গোলাপ নামের এক প্রতারক।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার খারনৈ ইউনিয়নের বাউসাম বাজারে উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে গোলাপ ১ লাখ ১৯ হাজার টাকা ফেরত দেয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কলমাকান্দা উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. জাকির হোসেন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল করিম, পল্লী বিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. মজিবুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী শেখ জিয়াউর রহমান, ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) আবুল কালাম আজাদ, মো. মনির হোসেন (কারিগরি), সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (এজিএম) মো. আনিছুল হক প্রমূখ।

ইউএনও মো.জাকির হোসেন কালের কণ্ঠকে জানান, বাউসাম গ্রামের প্রতারক গোলাপ পল্লী বিদ্যুতের ঠিকাদার মজিবুর রহমানের যোগসাজশে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার নামে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ১ লাখ ১৯ হাজার টাকা হাতিয়া নেয়। উপজেলার খারনৈ ইউনিয়নের তিনটি গ্রাম বিশ্বনাথপুর, লহ্মীপুর ও বৈঠাখালি গ্রামের ৭৯ জন গ্রাহকের কাছ থেকে লক্ষাধিক ওই টাকা নেয় তারা। টাকা নেওয়ার দুই বছর পেরিয়ে গেলেও বিদ্যুৎ না পেয়ে গ্রাহকদের মধ্যে চরম প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। পরে এলাকাবাসী উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জানালে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচার হলে, স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা উদ্যোগ নিয়ে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে গোলাপের ওপর চাপ সৃষ্টি করলে মঙ্গলবার টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হন।

পল্লী বিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. মজিবুর রহমান বলেন, বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে কোনো দালাল ধরতে হয় না। ৪৫০ টাকায় একজন গ্রাহক বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে পারেন। টাকা ফেরত দেওয়া প্রতারক গোলাপ ও অভিযুক্ত ঠিকাদার মজিবুরের বিরুদ্ধে আলোচনা সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা