kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নবীনগর পৌরসভার মেয়র হলেন শিব শংকর

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও নবীনগর প্রতিনিধি   

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ২২:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নবীনগর পৌরসভার মেয়র হলেন শিব শংকর

অ্যাডভোকেট শিব শংকর দাস

অবশেষে সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নবীনগর পৌরসভার মেয়র পদে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী অ্যাডভোকেট শিব শংকর দাস ২ হাজার ৫০৫ ভোটের ব্যবধানে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচনে ১২টি কেন্দ্রে তিনি মোট ভোট পেয়েছেন ৬ হাজার ৭২৫। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বর্তমান মেয়র ও বিএনপি থেকে পদত্যাগকারী বিদ্রোহী প্রার্থী মোহাম্মদ মাইনুদ্দিন মাইনু। মোবাইল প্রতীকে তার প্রাপ্ত ভোট ৪ হাজার ২২০। 

আজ সোমবার সকাল থেকে দিনভর নবীনগর পৌরসভা নির্বাচন চলাকালে বিভিন্ন কেন্দ্রে সরজমিনে ঘুরে স্মরণকালের ইতিহাসে এক উৎসবমুখর পরিবেশে হাজার হাজার ভোটারদেরকে প্রতিটি কেন্দ্রে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট প্রদান করতে দেখা গেছে। 

১৯৯১ সালে অনুষ্ঠিত বিচারপতি শাহাবুদ্দিনের করা বহুল আলোচিত নির্বাচনের পর এই প্রথম সাধারণ মানুষকে নির্ভয়ে, নির্বিঘ্নে ও স্বতঃস্ফুর্তভাবে এই নির্বাচনে ভোট প্রদান করতে দেখা যায়। তবে এই প্রথম ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ায়, সকালের দিকে কয়েকটি কেন্দ্রে ইভিএম যন্ত্রাংশে ত্রুটি দেখা দেওয়ায় ভুগিয়েছে নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের।

ওই সময় ভোট নেওয়ার গতি মন্থর হয়ে যাওয়ায় ভোটারদেরকে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে কিছুটা বিরক্ত ও ক্ষোভ প্রকাশ করতেও দেখা গেছে। তবে দুপুরের পর ভোটের গতি অনেক বেড়ে যেতেও দেখা যায়।

এদিকে অনেক কেন্দ্রেই নির্ধারিত সময় বিকেল ৫টার পর সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত কেন্দ্রের ভেতরে অবস্থান করা ভোটারদের ভোট সুষ্ঠুভাবে নিতে দেখা গেছে।

তবে প্রথমবারের মতো ইভিএম পদ্ধতি নিয়ে ভোটারদের মনে শুরুতে অজানা এক শঙ্কা থাকলেও ভোটকেন্দ্রের বুথে প্রবেশের পর খুব সহজেই ভোট দিয়ে এসে অনেককেই আবার স্বস্তি প্রকাশ করতেও দেখা গেছে।

এদিকে নির্বাচন চলাকালে সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, নবীনগর উপজেলা নির্বাহী (ইউএনও) মোহাম্মদ মাসুম, নবীনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও এই নির্বাচনের রিটার্নিং কমকর্তা মো. জিল্লুর রহমান, ওসি রনজিত রায়, ইন্সপেক্টর তদন্ত রাজু আহমেদসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদেরকে বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করতে দেখা গেছে।

এ সময় সর্বত্র সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হতে দেখে তাঁরাও কালের কণ্ঠের কাছে সন্তোষ প্রকাশ করেন। নির্বাচনে বিজিবি র‍্যাব ও বিপুল পরিমাণ পুলিশকে কঠোরভাবে দায়িত্ব পালন করতেও দেখা যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা