kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অত্যধিক বর্বর-নৃশংস কায়দায় শিশু তুহিনকে হত্যা, আটক ৭

হত্যার সময় কেটে নেওয়া হয়েছে শিশুটির কান ও লিঙ্গ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ১৮:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অত্যধিক বর্বর-নৃশংস কায়দায় শিশু তুহিনকে হত্যা, আটক ৭

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের খেজাউড়া গ্রামে তুহিন মিয়া (৫) নামের একটি শিশুকে অত্যন্ত বর্বর ও নৃশংস কায়দায় হত্যা করা হয়েছে। এই ভয়াবহ হত্যাকান্ডের ঘটনায় শিশুটির বাবা, চাচাসহ ৭ স্বজনকে সোমবার দুপুরে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত তুহিন উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের গচিয়া কেজাউড়া গ্রামের বাছির মিয়ার ছেলে। আটককৃতরা হলেন- চাচা আব্দুল মছব্বির, জমশেদ মিয়া, নাসির মিয়া, জাকিরুল ও শিশু তুহিনের বাবা আব্দুল বাছির। আটক করা হয়েছে তুহিনের চাচি ও চাচাতো বোনকেও।

সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বলেন, আটক ৭জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সন্দেহজনক কিছু মনে না হলে তাদের ছেড়ে দেয়া হবে।

এর আগে আজ সোমবার সকালে দিরাইয়ে একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় শিশু তুহিনের লাশ। তার পেটের মধ্যে ঢুকানো ছিলো দুটি ছুরি। ডান হাতটি গলায় বাধা রশির ভেতরে ঢুকানো ছিলো। বাম হাতটি ঝুলে ছিলো দেহের সঙ্গে। কেটে নেওয়া হয়েছে শিশুটির কান ও লিঙ্গ। আর তার পুরো শরীর ভিজে আছে রক্তে। এমন বর্বর-নৃশংসতায় শিশু তুহিনকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

হত্যার পরে তার মরদেহ গাছের সাথে ঝুলিয়ে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। সকাল ১০টার দিকে খবর পেয়ে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা