kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সাতকানিয়ায় নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, সাতকানিয়া   

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ১৬:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাতকানিয়ায় নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ হয়েছে। উপজেলার ১৭ ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ১২৫টি কেন্দ্রে ৭০১ বুথে সকাল ৯টা থেকে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। ভোটকেন্দ্রগুলোতে সরেজমিন পরিদর্শনকালে দেখা যায়, কেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি খুবই কম। অধিকাংশ ভোটকেন্দ্র সকাল থেকে ফাঁকা। ভোট গ্রহণকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গল্প করে সময় কাটাচ্ছে। 

এদিকে, বিএনপি প্রার্থীর অভিযোগ- বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে তার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। তবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভোটকেন্দ্রগুলোতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও চট্টগ্রামের সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান জানিয়েছেন, দুপুর ১২টা পর্যন্ত সময়ে গড়ে ১০ শতাংশ ভোট গ্রহণ হয়েছে। দুপুরের পরে ভোটারের উপস্থিতি কিছুটা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার।  

নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী এম এ মোতালেব। তিনি জানান, সকাল থেকে অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটাররা ভোট দিচ্ছেন। এ ধরনের পরিবেশে ভোট গ্রহণের পর ফলাফল যাই হোক আমি মেনে নেব। বিএনপি প্রার্থীর এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ প্রসঙ্গে এম এ মোতালেব জানান, তিনি অনেক আগে থেকে পালানোর পথ খুঁজছিলেন। এটা একটা মনগড়া অজুহাত। 

অন্যদিকে, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী আবদুল গফ্ফার চৌধুরী জানান, সকালের দিকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ শুরু হলেও দুপুরের দিকে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। কেন্দ্রে যেসব ভোটার যাচ্ছে তারা শুধু আঙুলের ছাপ দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। প্রতীকের বাটনে আওয়ামী লীগের লোকজন চাপ দিচ্ছে। তিনি আরো জানান, আমি কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ করার পর নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধন্ত জানিয়ে দেব। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা