kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

মাস্টার সংকটে শ্রীনিধি স্টেশন বন্ধ, যাত্রীসেবা দুর্ভোগ চরমে

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

১৪ অক্টোবর, ২০১৯ ১৪:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাস্টার সংকটে শ্রীনিধি স্টেশন বন্ধ, যাত্রীসেবা দুর্ভোগ চরমে

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা ভূমির ওপর দিয়ে চলে গেছে ঢাকা-সিলেট-চট্টগ্রাম রেলপথ। উপজেলার ২৭ কিলোমিটারের মধ্যে রয়েছে মোট ছয়টি রেলওয়ে স্টেশন। স্টেশনগুলো হলো- আমিরগঞ্জ, খানাবাড়ি, হাঁটুভাঙ্গা, মেথিকান্দা, শ্রীনিধি ও দৌলতকান্দি। এর মধ্যে শ্রীনিধি স্টেশেন যাত্রা বিরতি করে তিনটি ট্রেন, সেগুলো হলো- কর্ণফুলী এক্সপ্রেস, ঈশা খাঁ ও সিলেট মেইল।

বিজ্ঞাপন

গত তিন মাস যাবত শ্রীনিধি রেলওয়ে স্টেশনে মাস্টার না থাকায় বন্ধ রয়েছে স্টেশন। এতে বিঘ্নিত হচ্ছে যাত্রীসেবা। বিরুপ প্রভাব পড়েছে স্থানীয় ব্যবসা-বাণিজ্যের ওপর।

সরেজমিনে ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, স্টেশন মাস্টার আক্তার হোসেনকে বদলি করা হয়েছে জিনারদীতে। বর্তমানে শ্রীনিধি স্টেশনটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। স্টেশন মাস্টার অফিস তালাবদ্ধ। বন্ধ টিকিট কাউন্টার, ওয়েটিং রুম, টয়লেটসহ সকল যাত্রী সেবা।

মো. হবি নামে এক কলা ব্যাবসায়ী সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, ট্রেনের জন্য অনেক ক্ষণ ধরে অপক্ষো করছেন। কলা নিয়ে যাবেন নরসিংদী কিন্তু মাস্টার না থাকায় ট্রেন কখন আসবে জানেন না। তাই হবির মতো নিরুপায় আরো অনেক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। এভাবেই ট্রেনের অপেক্ষায় তাদের প্ল্যাটফর্মে দাড়িঁয়ে থাকতে দেখা যায়। স্থানীয় সোহের তাজ জানায়, শ্রীনিধি স্টেশনে যে তিনটি ট্রেন যাত্রা বিরতি করে। যাত্রী ও মালামাল ওঠা-নামার জন্য ট্রেনগুলো নির্ধারিত দুই মিনিটেরও কম সময় অবস্থান করে। এক নাম্বার প্ল্যাটফর্মের পরিবর্তে দুই নাম্বার লাইনে থামায়। ভূমি থেকে ট্রেনের বগির উচ্চতা বেশি হওয়ায় ওঠা-নামায় যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এতে ঘটছে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণহানির সংখ্যা।

এ জন্য যাত্রী ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দুর্ভোগ লাঘবের জন্য বন্ধ স্টেশনটিতে মাস্টারও অন্যান্য কর্মচারি নিয়োগ দেওয়ার মাধ্যমে পুনরায় স্টেশনটি সচল করতে রেল কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে আক্তার হোসেনের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, তাকে শ্রীনিধি থেকে বদলি করে জিনাদীতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

যাত্রী দুর্ভোগের কথা শিকার করে নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনে কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার এটি এম মুছা বলেন, শ্রীনিধি স্টেশনে মাস্টার সংকটে যাত্রী সেবা ব্যাহত হচ্ছে। নতুন করে মাস্টার নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত এই দুর্ভোগ থেকে উত্তরণে কোনো সম্ভাবনা নেই।



সাতদিনের সেরা