kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

পঞ্চগড়ে ১৭২টি দুর্যোগ সহনীয় ঘর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১৯:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পঞ্চগড়ে ১৭২টি দুর্যোগ সহনীয় ঘর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাবিটা ও টিআর কর্মসূচির বিশেষ খাতের অর্থে মানবিক সহায়তায় পঞ্চগড় জেলার পাঁচ উপজেলার বসত ভিটা আছে ঘর নেই এমন অসচ্ছল, হতদরিদ্র, গৃহহীন, নদীভাঙনসহ বিভিন্ন দুর্যোগে গৃহহীন ১৭২টি পরিবারের জন্য দুর্যোগ সহনীয় পাকা বাড়ি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ রবিবার দুপুরে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবসে ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই সকল ঘর উদ্বোধন করেন প্রধামন্ত্রী।

এ সময় অনুষ্ঠানটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। পরে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সদর উপজেলার দ্বারিকামারী গ্রামের আসমা বেগমের বাড়ির ফলক উম্মোচন করেন। এ সময় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিনা শবনম, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মতিউর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস জানায়, অসচ্ছল পরিবারের নিজস্ব তিন শতক জমিতে ঘরগুলো নির্মাণ করা হয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে প্রত্যেক বাড়ি নির্মাণে সরকারের খরচ হচ্ছে ২ লাখ ৫৮ হাজার ৫৩১ টাকা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা প্রকল্পবাস্তবায় কর্মকর্তা ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের তত্ত্বাবধানে দুর্যোগ সহনীয় বাড়িগুলো নির্মাণ করেছে সরকার। ইটের গাঁথুনি দিয়ে বাড়িগুলো নির্মিত হয়েছে। কাঠের দরজা-জানালা, অত্যাধুনিক রঙিন টিনের ছাউনি, ১০ ফিট লম্বা ও ১০ ফিট আয়তনের দুই কক্ষের বাড়ি, একটি রান্নাঘর ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটারি শৌচাগার নির্মান করা হয়েছে।

এসব ঘর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকা। ২৭২টি ঘরের মধ্যে পঞ্চগড় সদর উপজেলায় ৩১টি, বোদা উপজেলায় ৩৬টি, দেবীগঞ্জে ৪৬টি, আটোয়ারীতে ৩১টি ও তেঁতুলিয়া উপজেলায় ২৮টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা