kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

শিবালয়ে ১৫ জেলের কারাদণ্ড

আঞ্চলিক প্রতিনিধি (মানিকগঞ্জ)   

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১৮:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিবালয়ে ১৫ জেলের কারাদণ্ড

জব্দ করা কারেন্ট জাল পো্ড়ানো হচ্ছে

রাতের অন্ধকারে মাছ শিকারে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েছেন মানিকগঞ্জ শিবালয়ের ১৫ জন জেলে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যমুনা নদীতে ইলিশ শিকারের দায়ে তাদের প্রত্যেককে এক বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। শনিবার রাত থেকে ভোর পর্যন্ত টানা অভিযানে তাদের যমুনা নদী থেকে আটক করা হয়।

সূত্র জানায়,অভিযানকালে এক লাখ মিটার কারেন্ট জাল ও ২০ কেজি ইলিশ উদ্ধার করা হয়। শিবালয় উপজেলার নির্বাহী র্কমর্কতা এ এফ এম ফিরোজ মাহমুদ পরে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে গ্রেপ্তারকৃতদের এক বছর করে বিনাশ্রম  কারাদণ্ড প্রদান করেন। সাজাপ্রাপ্তদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন নুরুল হক (৪০), কামাল শেখ (৩০), সানোয়ার শেখ (২৫), মো. সাজেদ(২০), নওশের আলী (৪৫), সজিব শেখ(২০), রাসেল (২২), হক আলী(২০), দেলোয়ার হোসেন (২৭), জুয়েল (৩৪), সুজন (২৪),আবু তালেব (৩০), সোহেল রানা (২৭) ও জুয়েল শেখ (৩৫)। তাদের সবার বসবাস উপজেলার আলোকদিয়া চরের বিভিন্ন এলাকায়।

এদিকে আরিচা ঘাটের বিভিন্ন গুদামে যৌথ অভিযযান চালিয়ে পাঁচটি গুদাম থেকে জব্দ করা হয়েছে প্রায় এক কোটি টাকার জাল। এ সময় মো. আলামীন (২৫), রেজাউর খন্দকার (২০) ও ইছাক মোল্লা (২২) নামে তিনজনকে আটক করা হয়। পরে শিবালয় উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভুমি) ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেন। যৌথ অভিযানে উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার উনু মং, শিবালয়ের এসিল্যান্ড মো. জাকির হোসেন, শিবালয়ের সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা মো. আতিয়ার রহমান প্রমূখ।

র‌্যাব সূত্র জানায়, আরিচা ঘাটে অনেকদিন ধরে ইলিশ ধরার কারেন্ট জাল বিক্রি হচ্ছিল। অবৈধ এ কাজে জড়িতদের চিহ্নিত করে অভিযান চালানো হয়। গুদাম থেকে জব্দ করা জাল যমুনার পাড়ে নিয়ে পুড়িয়ে ফেলা হয়। গুদাম মালিকসহ অপরাধে জড়িতদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়ের করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা