kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

জুট মিলের জমে থাকা বর্জ্যে জন্ম নিচ্ছে মশা, ডেঙ্গু আতঙ্কে এলাকাবাসী

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৪:২১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জুট মিলের জমে থাকা বর্জ্যে জন্ম নিচ্ছে মশা, ডেঙ্গু আতঙ্কে এলাকাবাসী

যশোরের অভয়নগর উপজেলার মশরহাটী গ্রামে নওয়াপাড়া জুট মিলের জমে থাকা বর্জ্য থেকে বিভিন্ন প্রজাতির মশা জন্ম নিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মিলের অফিস, আবাসিক ও অনাবাসিক এলাকার সকল বর্জ্য পাইপলাইনের মাধ্যমে ফেলা হচ্ছে রেলওয়ের জমিতে। ডেঙ্গুসহ বিভিন্ন মশাবাহী রোগে আক্রান্ত হওয়ার আতঙ্কে রয়েছেন এলাকাবাসী। 

সরেজমিনে মঙ্গলবার সকালে নওয়াপাড়া জুট মিলে গিয়ে দেখা যায়, মিলের প্রধান ফটকের পাশে সীমানা প্রাচীরের সামনে রেললাইন সংলগ্ন সরকারি জমির কয়েকটি স্থানে বিপুল পরিমান বর্জ্য জমে আছে। ঝোপঝাড়ে পরিপূর্ণ, যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনার মধ্যে জমে থাকা দুর্গন্ধযুক্ত বর্জ্যে প্রচুর মশা ও ক্ষতিকর জীবাণুও রয়েছে। 

বর্জ্যের পাশে স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের কার্যালয় রয়েছে। অপর পাশে রয়েছে শত শত বস্তি ঘর। 

বস্তির রহিমা বেগমসহ কয়েকজন অভিযোগ করেন, বছরের পর বছর এভাবে মিলের সব ময়লা-আবর্জনা ও বর্জ্য পাইপের মাধ্যমে তাদরে সামনে রেলের জমিতে ফেলা হচ্ছে। দুর্গন্ধে বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়েছে। মিল কর্তৃপক্ষ এসব ময়লা-আবর্জনা ও বর্জ্যের মধ্যে কোনো প্রকার ওষুধ দেয় না। বর্তমানে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। সেই আতঙ্কে রয়েছি আমরা। বর্জ্য ও দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি কামনা করেন তারা। 

আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে থাকা যুবলীগ নেতা ওহিদুল জানান, দুর্গন্ধযুক্ত বর্জ্য থেকে রক্ষা পেতে তিনিসহ দলের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ মিল কর্তৃপক্ষের নিকট রেলওয়ের ওই জমিটি চেয়েছিলেন। তারা ওই জমির ওপরে ফুলের বাগান এবং খননকৃত অংশে (জমে থাকা বর্জ্য) মাছের চাষ করতে চেয়েছিলেন। বারবার আবেদন করার পরও মিল কর্তৃপক্ষ প্রস্তাবে রাজি হয়নি। 

নেতৃবৃন্দ মিল কর্তৃপক্ষের এমন কর্মকাণ্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এখন এলাকাবাসী চরম আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। কারণ, পরিত্যক্ত জমে থাকা বর্জ্য থেকে এডিসসহ বিভিন্ন প্রজাতির মশার জন্ম হয়। তাছাড়া ঝোপঝাড়ের মধ্যে বিষধর সাপের উপদ্রপ রয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে বর্জ্য অপসারণ এবং ঝোপঝাড় পরিস্কার করে মাছের খামার ও ফুলের বাগান গড়ে তোলার আহ্বান জানান তারা। 

এ ব্যাপারে নওয়াপাড়া জুট মিলের ম্যানেজার অ্যাডমিন মোহাম্মদ শাহীনের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, রেলওয়ের জমি জুট মিল লিজ নিয়ে রেখেছে। ময়লা, আবর্জনা ও বর্জ্যের বিষয় স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানাবেন এবং দ্রত সময়ের মধ্যে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন। দীর্ঘদি ধরে জমে থাকা বর্জ্য থেকে বিভিন্ন প্রজাতির মশার জন্ম নিচ্ছে এমন অভিযোগের বিষয়টি তিনি এড়িয়ে যান।  

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা