kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

বসতভিটা রক্ষা করতে চান সফি উল্যা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি    

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বসতভিটা রক্ষা করতে চান সফি উল্যা

লিখিত বক্তব্যে পাঠ করছেন সফি উল্যার ছেলে মো. তারেক।

লক্ষ্মীপুরে জমিসহ বসতঘর রক্ষায় মো. সফি উল্যা (৬৫) নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক কর্মচারী সংবাদ সম্মলন করে আকুতি জানিয়েছেন। তার জমি জোর করে দখলে নিতে কয়েকজন প্রভাবশালী প্রতিবেশী পাঁয়তারা করে আসছে বলে অভিযোগ। এছাড়াও তারা সফি উল্যা, তার স্ত্রী ও মেয়ের ওপর হামলাও চালায়। 

আজ রবিবার বিকেলে চন্দ্রগঞ্জ প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সফি উল্যা এসব অভিযোগ করেন। একই ঘটনায় তিনি চন্দ্রগঞ্জ থানায়ও অভিযোগ করেছেন। সফি উল্যা সদর উপজেলার হাজিরপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব আলাদাদপুর গ্রামের বাসিন্দা। 

অভিযুক্ত হামলাকারীরা হলেন পূর্ব আলাদাদপুর গ্রামের মো. সিরাজের ছেলে ওবায়দুর রহমান আবু, সাইফুল, আজাদ, সায়মন, সিদ্দিক উল্লার ছেলে মনির হোসেন সুমন, শফি উল্লার ছেলে মোসলেহ উদ্দিন, বাবুল মিয়ার ছেলে তানভীর সিকদার এবং আনোয়ার উল্লার ছেলে নুরুল হুদা। 

ভুক্তভোগী সফি উল্যা বলেন, ওবায়দুর রহমানসহ অভিযুক্তরা এরই মধ্যে আমার তিন শতাংশ জমি জোর করে দখল করে নিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তারা আমাদের গৃহবন্দী করে রাখার চেষ্টা চালিয়েছে। গত এক মাসে একাধিকবার দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তারা আমার জমিসহ বসতঘর দখলের চেষ্টা চালায়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সফি উল্যার ছেলে মো. তারেক বলেন, গত ১৮ আগস্ট অভিুক্তরা আমার মা-বাবা ও প্রতিবন্ধী বোন জোছনা আক্তারকে পিটিয়ে আহত করে। তখন আমি ঢাকায় ছিলাম। পরে ৯৯৯-এ কল করলে চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ আমার পরিবারকে পরিবারকে সহযোগিতা করে। কিন্তু এ ঘটনার পর তারা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে। তারা আমাদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে। আমার কলেজ পড়ুয়া ভাগ্নিকে (বোনের মেয়ে) বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। এসব কারণে আমরা শঙ্কিত।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ওবায়দুর রহমান আবু বলেন, আমরা সফি উল্যার কাছ থেকে জমি পাবো। এনিয়ে আদালতের রায় আমাদের পক্ষে আছে। তাদের ওপর আমরা কোনো হামলা করিনি। আমাদের জমি বুঝিয়ে দিবে না বলেই সফি উল্যা এসব অভিযোগ করছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা