kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১            

বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যকে শেকৃবিতে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

শেকৃবি প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যকে শেকৃবিতে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিক বহিষ্কার, নির্যাতন এবং আন্দোলনরত অবস্থায় শিক্ষার্থীদের ওপর সন্ত্রাসী লেলিয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্য ড. খন্দকার নাসিরুদ্দীনের কুশপুত্তলিকা দাহ ও  মানববন্ধন করেছে। এ সময় তারা ড. নাসিরুদ্দীনকে শেকৃবিতে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে।

রবিবার দুপুর ১টায় শেকৃবির প্রশাসনিক ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনের শুরুতেই বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্যের কুশপুত্তলিকা দাহ করে। এরপর ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা মানববন্ধনে বক্তৃতা প্রদান করেন।

বক্তৃতায় শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের ১৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী জামিউল আলম পরশ বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিক ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর এমন বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। আজকের পর থেকে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে তার (বশেমুরবিপ্রবি উপাচার্য) প্রবেশ নিষিদ্ধ। তিনি যদি এই বিশ্ববিদ্যালয়ে কখনো প্রবেশের চেষ্টা করে আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা তা প্রতিহত করব।

অপর শিক্ষার্থী মো. রসূল হোসেন বলেন, যে উপাচার্য বাইরের সন্ত্রাসী দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় তার উপাচার্য পদে থাকার কোনো যোগ্যতা নেই। অবিলম্বে এই অযোগ্য উপাচার্যকে অপসারণ করে তাকে বিচারের আওতায় আনতে হবে’।

রাহাত ইসলাম বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ভিসি বাহিনীর হামলা একাত্তরের নৃসংশতার কথা মনিয়ে করিয়ে দেয়। এটা আমাদের লজ্জা। 

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের জানান, অবিলম্বে ভিসি নাসিরুদ্দীনকে অপসারণ না করা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। আজ সন্ধ্যায় মশাল মিছিল করবে বলে নিশ্চিত করেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা