kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৭ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৭ সফর ১৪৪১       

বৃষ্টি এলে 'নদী' হয়ে যায় শ্রীবরদী-কর্ণঝোড়া সড়ক

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২০:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বৃষ্টি এলে 'নদী' হয়ে যায় শ্রীবরদী-কর্ণঝোড়া সড়ক

দীর্ঘদিন ধরে শেরপুরের শ্রীবরদী হতে কর্ণঝোড়া সড়ক পুনঃনির্মাণের অভাবে এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সড়কটির বেশিরভাগ এলাকা গর্ত আর খানা খন্দে ভরা। এতে অল্প বৃষ্টিতেই পানি জমে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার যানবাহন চালক ও পথচারীরা। যাতায়াত ব্যবস্থার চরম দুর্ভোগ থেকে বাঁচতে জরুরি সড়কটি মেরামতের দাবি জানান এলাকাবাসী ও চলাচলকারীরা।

আজ শনিবার সরেজমিন গেলে যানবাহন চলাচলকারী ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে ওঠে এমন চিত্র।

জানা যায়, শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলা সদর হতে কর্ণঝোড়া পর্যন্ত প্রায় ১৪ কিলোমিটার দীর্ঘ। এ সড়কটি সীমান্ত এলাকার চলাচলকারীদের জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সড়কটি দিয়ে পর্যটন এলাকা লাউচাপড়া পিকনিক স্পট, বন বিভাগ, কর্ণঝোড়া রাবার বাগান, বিজিবি ক্যাম্প, আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকা ও সীমান্ত সড়কসহ সরকারি বেসরকারি অর্ধশত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীর। এ ছাড়া কর্ণঝোড়া বাজার হতে ৮/১০টি দূরপাল্লার বাস চলে। এখান থেকে ঢাকাসহ যাতায়াত করেন শতশত যাত্রী।  প্রতিদিন এসব যানবাহন চালক ও যাতায়াতকারীরা চরম দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে যাতায়াত করেন।

উপজেলা ট্রাইবাল ওয়েল ফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান প্রাঞ্জল এম সাংমা কালের কণ্ঠকে বলেন, আমরা সীমান্ত এলাকায় বাস করি। যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ হওয়ায় আমাদের এলাকার কৃষি পণ্যসহ নানা সামগ্রী আনা-নেওয়ায় আরো বেশি ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। এ সড়কে মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা। সন্ধ্যা হলেই কোনো যানবাহন চলাচল করতে চায় না।

সিংগাবরনা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রেজ্জাক মজনু বলেন, সড়কটি দ্রুত পুনঃনির্মাণের জন্যে মাসিক উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভায় জানানো হয়েছে।

তিনি জানান, দুবছর আগে সড়কটির রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করলেও তা ভেঙে যায় এক বছর আগেই। ভরে যায় খানা খন্দে। কোথাও সৃষ্টি হয়েছে মরণ ফাঁদ। বৃষ্টি হলেই এতে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। এ জন্য প্রতিদিন যানবাহন চালকসহ হাজার হাজার মানুষ চরম বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন।

দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে ১৯/২০ অর্থ বছরের মধ্যেই সড়কটি মেরামতের আশ্বাস দেন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের পার্শ্ববর্তী উপজেলার ঝিনাইগাতীর প্রকৌশলী ও শ্রীবরদীর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা