kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

ঈশ্বরগঞ্জে স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রীর মৃত্যু

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈশ্বরগঞ্জে স্বামীর ছুরিকাঘাতে স্ত্রীর মৃত্যু

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে স্বামীর ছুরিকাঘাতে লাকী আক্তার নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছেন। আজ বুধবার সকালে উপজেলার দত্তপাড়া মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় ঘাতক স্বামী সবুজ মিয়া পালাতে গেলে এলাকার লোকজন ধরে পুলিশে দেয়।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, প্রায় তিন বছর আগে ওই মহল্লার মতিউর রহমানের মেয়ে লাকী আক্তারের বিয়ে হয় তারাকান্দা উপজেলার মেছেরা গ্রামের আব্দুল কাদিরের ছেলে আব্দুল মান্নান সবুজ মিয়ার সাথে। বিয়ের পর থেকেই যৌতুক দাবি ছাড়াও বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিবাধ চলছিল। এর মধ্যে তাদের ঘরে জন্ম নেয় এক কন্যা সন্তানের। যৌতুকের দাবি অনুযায়ী বেশ কয়েকবার নগদ অর্থ দেওয়া হয়।

লাকীর বাবা মতিউর রহমান জানান, গত সোমবার সকালে লাকী আমাদের বাড়ি আসে। পরদিন মঙ্গলবার সবুজ মিয়াও চলে আসে। এ অবস্থায় ওই দিন রাত আটটার দিকে দুই জনের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক হয়।

তিনি আরো জানান, বুধবার সকালে দুজনের মধ্যে কোনো ধরনের মনমালিন্য দেখা না গেলেও সবুজ কিছু সময়ের জন্য ঘরের বাইরে যায়। পরে ফিরে এসে মেয়েকে ঘরের বারান্দা থেকে ডেকে নিয়ে  নিজ ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। হঠাৎ চিৎকার শুনে তার ছোট মেয়ে লিমা ঘরে ঢুকে দেখতে পায় লাকীর বুকে ছুরি গেঁথে রয়েছে। এ ঘটনার পর সবুজ পালিয়ে যাওয়ার সময় এলাকার লোকজন ধরে ফেলে।

জানা যায়, মাতৃকালীন সরকারি ভাতার টাকাসহ নিজের জমানো মোট ৩৭ হাজার টাকা নিয়ে লাকী বাবার বাড়িতে আসেন। এই টাকার একটা অংশ সবুজ গত কয়েকদিন ধরে চেয়ে আসছিলেন। দিতে অস্বীকার করায় সবুজের মধ্যে একটা জেদ কাজ করে। এর জের ধরেই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটায় সবুজ। ঈশ্বরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক সজিব ঘোষ সবুজের উদ্ধৃত দিয়ে কালের কথকে এ তথ্য জানান।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আহাম্মেদ কবির জানান, এ ঘটনায় নিহতের বাবা মতিউর রহমান বাদী হয়ে সবুজ মিয়াকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তারকৃত সবুজকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা