kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

প্রার্থী বেশি, তাই স্ক্রড্রাইভারও নির্বাচনী প্রতীক!

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রার্থী বেশি, তাই স্ক্রড্রাইভারও নির্বাচনী প্রতীক!

'পৌরসভা নির্বাচনে 'স্ক্রুড্রাইভার' কি কোনো প্রতীক হতে পারে? আমাদের দেশে কি প্রতীকের এতই অভাব যে প্রতীক হিসেবে স্ক্রুড্রাইভারকে বেছে নিতে হবে?

আগামী ১৪ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সিলর পদপ্রার্থীদের জন্য এবার অন্যান্য প্রতীকের সঙ্গে 'স্ক্রুড্রাইভার'কেও প্রতীক হিসেবে যুক্ত করায় অনেকটা ক্ষোভের সঙ্গে আজ বুধবার সকালে কালের কণ্ঠের কাছে কথাগুলো বলছিলেন কয়েকজন কাউন্সিলর পদপ্রার্থী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সলির প্রার্থীদের জন্য ১২টি এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলদের জন্য ১০টি প্রতীক বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এর মধ্যে সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীদের জন্য রাখা 'স্ক্রুড্রাইভার' প্রতীকটি নিয়ে প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে নানা নেতিবাচক আলোচনা চলছে।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, শুধু স্ক্রুড্রাইভার প্রতীকই নয়, এবারের নির্বাচনে ব্রিজ, ঢেঁড়শ, গাঁজর, আংটির মতো হাস্যকর প্রতীকও প্রার্থীদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কাউন্সিলর প্রার্থী কালের কণ্ঠকে বলেন, এসব হাল্কা নামীয়
প্রতীকের বদলে দেশের ঐতিহ্যকে বহন করা জাতীয়ভাবে পরিচিত অন্যসব প্রতীককে বরাদ্দ রাখাটা দরকার ছিলো।

এ বিষয়ে এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জিল্লুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, এটিতো সমপূর্ণ নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার। তবে নবীনগর পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীর চেয়ে প্রতীকের সংখ্যা অনেক বেশী। তাই 'স্ক্রুড্রাইভার' প্রতীক এক্ষেত্রে কোনো সমস্যা হবে না।

প্রসংগত, আগামী ২২ সেপ্টেম্বর প্রার্থীতা প্রত্যার শেষে ২৩ সেপ্টেম্বর প্রার্থীদের মধ্যে 'প্রতীক' বরাদ্দ দেওয়া হবে। আর নির্বাচন হবে ১৪ অক্টোবর।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা