kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

লোহাগড়ায় চুরির সন্দেহে দিনমজুরকে নির্মম নির্যাতন

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:১১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লোহাগড়ায় চুরির সন্দেহে দিনমজুরকে নির্মম নির্যাতন

নড়াইলের লোহাগড়ার চালিঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পানির পাম্প চুরির কথিত অভিযোগে রকি মোল্যা (৩২) নামে এক দিনমজুরকে নির্মম নির্যাতন করা হয়েছে। মারাত্মক অসুস্থ ওই দিনমজুর এখন লোহাগড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনা তদন্তে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে কাশিপুর ইউনিয়নের চালিঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভূক্তভোগীর মা ফিরোজা বেগমসহ পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার রাতে চালিঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পানির পাম্প চুরি হয়। এ ঘটনায় কলাগাছি গ্রামের আতিয়ার মোল্যার ছেলে রকি মোল্যাকে সন্দেহ করা হয়। এ ঘটনায় প্রথমে দুপুর ১২ টার দিকে ওই এলাকার ৫/৬ জন মিলে চালিঘাট ব্রিজের কাছে ওই তাকে মারপিট করে। পরে সেখান থেকে রকিকে চালিঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়ে দ্বিতীয় দফায় লাঠি ও লোহার রড দিয়ে মারপিট করে বলে অভিযোগ। এরপর স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে লোহাগড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

রকি অভিযোগ করে বলেন, নির্যাতনকালে তার কাছ থেকে নগদ টাকা ও ফোন ছিনিয়ে নেয় নির্যাতনকারীরা।

লোহাগড়া হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার মো. আব্দুল্লা আল মামুন জানান, ওই রোগীর মাথা, বুক ও হাতসহ শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

চালিঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহাবুদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার সময় আমি স্কুলে ছিলাম না। পরে স্কুলে এসে আহত রকিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোকাররম হোসেন বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। রকি হাসপাতালে ভর্তি আছে। সুস্থ হয়ে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা