kalerkantho

শুক্রবার  । ১৮ অক্টোবর ২০১৯। ২ কাতির্ক ১৪২৬। ১৮ সফর ১৪৪১              

কুলাউড়ায় স্কুলছাত্রী লাঞ্ছনায় মামলা

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২০:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুলাউড়ায় স্কুলছাত্রী লাঞ্ছনায় মামলা

পলাতক যুবক জাহির

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় দশম শ্রেনীর এক ছাত্রী লাঞ্ছনার শিকার হয়েছে। বুধবার সকালে জাহির আহমদ চৌধুরী (৩৩) নামে এক যুবক প্রকাশ্য রাস্তায় তার ওপর হামলা চালায়। ঘটনার বিষয়ে মামলা হয়েছে। পুলিশ জাহিরকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

সূত্র জানায়, নবীন চন্দ্র সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীতে পড়া এক ছাত্রী সকাল সাড়ে নয়টার দিকে বাড়ি স্কুলে যাচ্ছিল। সিএনজি অটোরিকশা যোগে ছাত্রী যখন জনতাবাজারে পৌছে তখন পথরোধ করে জাহির। স্কুলছাত্রী সিএনজি অটোরিকশা থেকে নেমে আরেকটি অটোরিকশায় উঠে পড়লে মোটরসাইকেল দিয়ে জাহির সেটির পথ আটকে দেয়। এরপর ছাত্রীর হাত ধরে টেনে নামিয়ে প্রকাশ্যে মারধর করে। একপর্যায়ে ছাত্রীর পেটে লাথি মারে জাহির। স্কুলছাত্রীর চিৎকারে লোকজন এগিয়ে আসলে জাহির পালিয়ে যায়। আহত স্কুলছাত্রীকে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্বজনরা জানান,জাহির আহমদ চৌধুরী উপজেলার সদর ইউনিয়নের শংকরপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার পিতা মৃত সামছুদ্দিন চৌধুরী। বখাটে জাহির এর আগেও ছাত্রীকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করেছে। তা নিয়ে স্কুল কতৃপক্ষ ও অভিভাবকদের কাছে অভিযোগ করে স্কুলছাত্রী। বুধবার সকালে ঘটনার পর স্কুলছাত্রী শিক্ষকদের কাছে গিয়ে ঘটনা বলার পর অসুস্থ হয়ে পড়ে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আমির হোসেনকে সাথে নিয়ে স্কুলছাত্রীর মা কুলাউড়া থানায় যান। বখাটে জাহির আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে তিনি মামলা দায়ের করেন। এছাড়া কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে তিনি লিখিত অভিযোগ করেন।

নবীন চন্দ্র সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আমির হোসেন বলেন,'নির্যাতনের শিকার হয়ে ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসলে আমরা তার মাথায় পানি দেই। এসময় তার নাক ও ঠোট দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল। বিষয়টি ইউএনও স্যারকে অবহিত করে চিকিৎসার জন্য ছাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছি।'


কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, 'ছাত্রীর মা মামলা করেছেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে করা মামলার আসামি জাহিরকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।'

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি এটিএম ফরহাদ চৌধুরী বলেন, 'ঘটনার ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। আসামিকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশকে বলা হয়েছে। এ ধরনের ঘটনায় ছাড় দেয়া হবে না।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা