kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১            

মেয়েকে নিয়ে মায়ের আত্মহত্যা

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৮:১১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেয়েকে নিয়ে মায়ের আত্মহত্যা

নীলফামারীতে পারিবারিক কলহে তিন বছরের মেয়ে বৃষ্টি আক্তারকে সাথে নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন মা টুলটুলি বেগম (২৩)। সোমবার সকালে জেলা সদরের সোনারায় ইউনিয়নের দারোয়ানী রেল স্টেশনের কাছে এ ঘটনা ঘটে। চলন্ত ট্রেনের নীচে ঝাপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন টুলটুলি। মা ও মেয়ের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ মর্গে পাঠিয়েছে।

স্বজনরা জানান, সৈয়দপুর উপজেলার কয়া গলাহাট পশ্চিম পাড়া গ্রামের বুধারু মামুদের মেয়ে টুলটুলি। ছয় বছর আগে তার বিয়ে হয় জেলা সদরের সোনারায় ইউনিয়নের ধনীপাড়া গ্রামের তারেক হোসেনের সাথে। তারেক পেশায় বাদাম বিক্রেতা। এ দম্পতির একমাত্র সন্তান বৃষ্টি আক্তার (৩)। দাম্পত্য কলহের জেরে সোমবার সকাল সাতটার দিকে টুলটুলি শিশু কন্যাকে নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েন খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে। ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

বড় ভাই দুলাল হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘টুলটুলিকে মারপিট করতো মাদকাসক্ত স্বামী তারেক। একজোড়া কানের দুল বিক্রি নিয়ে রবিবার রাতে ঝগড়া বাধে। রাগ ও দুঃখে সকালে সন্তান নিয়ে আত্মহত্যা করেছে বোন।'

তারেকের বাবা হামিদুল ইসলাম বলেন, ‘রাতে ছেলে ও বৌমার মধ্যে কথা কাটাকাটি হতে শুনেছি। সকালে বৌমা বাবার বাড়ি যাওয়ার কথা বলে নাতনিকে নিয়ে বের হয়। এরপর ট্রেনে কাটা পড়ে তাদের মৃত্যুর খবর পাই।'

সোনারায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা কামাল বলেন, 'পারিবারিক কলহের জের ধরে মেয়েকে নিয়ে টুলটুলি বেগম আত্মহত্যা করেছেন। আগে তাদের ঝগড়ার কারণে ছাড়াছাড়ি হয়েছিল। পরে সেটি মিটে গেলে দুজনে সংসার করছিলেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা