kalerkantho

সোমবার । ১৪ অক্টোবর ২০১৯। ২৯ আশ্বিন ১৪২৬। ১৪ সফর ১৪৪১       

অভয়নগরে হাজার হাজার মানুষের অবস্থান, ভবদহের স্থায়ী সমাধান দাবি

এস এম মাসুদ তাজ, অভয়নগর (যশোর)    

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৪:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অভয়নগরে হাজার হাজার মানুষের অবস্থান, ভবদহের স্থায়ী সমাধান দাবি

ছবি : কালের কণ্ঠ

ভবদহের জলাবদ্ধতার স্থায়ী সমাধানে টিআরএম (টাইডাল রিভার ম্যানেজমেন্ট) চালুসহ ছয় দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবিতে যশোরের অভয়নগরে অবস্থান ধর্মঘট করছে পাঁচ উপজেলার মানুষ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে আজ সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় অভয়নগর, মনিরামপুর, ফুলতলা, খুলনার ডুমুরিয়া, সাতক্ষীরার তালা উপজেলার নারী-পুরুষ নির্বিশেষে হাজার হাজার মানুষ বিভিন্ন প্লাকার্ড হাতে অবস্থান কর্মসূচিতে  অংশগ্রহণ করেন।

ভবদহ জলাবদ্ধতা নিরসন আন্দোলন কমিটি আয়োজনে অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন ভবদহ জলাবদ্ধতা নিরসন আন্দোলন কমিটি ও অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক সাবেক পৌর মেয়র আলহাজ্ব এনামুল হক বাবুল।

কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য দেন অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহীনুজ্জামান, অভয়নগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর, পায়রা ইউপি চেয়ারম্যান ও আন্দোলন কমিটির সদস্য সচিব বিষ্ণুপদ দত্ত, পাইকগাছা উপজেলা পানি উন্নয়ন কমিটির সভাপতি আব্দুল মান্নান, অভয়নগর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক মোল্যা, ভবদহ কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মতলেব সরদার, মনিরামপুর উপজেলার কুলটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখর চন্দ্র, মনোহরপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান, সুন্দলী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান বিকাশ মল্লিক, অভয়নগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোল্যা আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহীনুজ্জামানের হাতে স্মারকলিপি প্রদান করেন আন্দোলন কমিটি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অভয়নগর উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুর রউফ মোল্যা।

বক্তারা বলেন, অবিলম্বে দাবি আদায় না হলে আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর যশোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘট ও ১২ অক্টোবর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন, অনশন কর্মসূচিসহ কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। প্রয়োজনে স্বেচ্ছায় কারাবরণ, নিজ নিজ এলাকায় কর-খাজনা এবং ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি প্রদান করা হয়।  

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা