kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

পাওনাদারের বাড়িতে আটক বৃদ্ধের মৃত্যু

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৯:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাওনাদারের বাড়িতে আটক বৃদ্ধের মৃত্যু

নাটোরের গুরুদাসপুরে ধারের টাকা ফেরত দিতে না পারায় পাওনাদারের বাড়িতে আটকে রাখা হয়েছিল ছহির উদ্দিন (৬৫) নামে এক বৃদ্ধকে। তিনদিন আটক থাকাকালে শনিবার রাতে মৃত্যু হয় ছহিরের। হত্যা মামলা দায়ের হলে পুলিশ মো. তারেক (৩০) ও রুহুল আমিন (৬৫) নামে দুজন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, চাঁচকৈড় তাড়াশিয়াপাড়া গ্রামের দিনমজুর ছহির উদ্দিন পাঁচ বছর আগে ৩৩ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলেন বামনকোলা গ্রামের তৈয়ব আলীর ছেলে তারেকের কাছে থেকে। দীর্ঘদিনে তা পরিশোধ করতে পারেননি। তারেক সুদে আসলে ৭৯ হাজার টাকা দাবি করেছেন। এ বিষয়ে কয়েক দফা তাগাদার পর ছহির টাকা শোধ না করায় ক্ষিপ্ত হন তারেক। বৃহস্পতিবার ছহিরকে আটকে রাখা হয় জ্ঞানদানগর গ্রামে তারেকের শ্বশুর রুহুল আমিনের বাড়িতে। সেখানে শনিবার রাত ৮টার দিকে ছহিরের মৃত্যু হয়। রোববার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে নাটোর মর্গে প্রেরণ করে।

স্থানীয় বিয়াঘাট ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোহাম্মদ স্বপন আলী দাবি করেন, বৃদ্ধ ছহির উদ্দিনের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। তিনি অনেকের কাছ থেকে টাকা ধার নেয়ার পর আর পরিশোধ করেননি। তারেক টাকা আদায়ে তাকে বাধ্য হয়েই আটকে রেখেছিল।

ছহিরের ছেলে সাইফুল ইসলাম বলেন, 'পাওনা টাকা না পেয়ে আমার বাবাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।' তিনি এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এজাহারে আসামি করা হয়েছে ৮ জনকে। পুলিশ রবিবার সকালে আসামি তারেক ও তার শ্বশুর রুহুল আমিনকে গ্রেপ্তার করেছে।

গুরুদাসপুর থানার ওসি মোজাহারুল ইসলাম বলেন, 'বৃদ্ধ ছহিরের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। স্বাভাবিক নাকি অস্বাভাবিক মৃত্যু তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে জানা যাবে। সেই মোতাবেক আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা