kalerkantho

সোমবার । ২১ অক্টোবর ২০১৯। ৫ কাতির্ক ১৪২৬। ২১ সফর ১৪৪১       

অনৈতিক কাজে বাধা, স্কুলছাত্রীকে বেপরোয়া ছুরিকাঘাত

দেবীদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:০৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অনৈতিক কাজে বাধা, স্কুলছাত্রীকে বেপরোয়া ছুরিকাঘাত

দেবীদ্বারে এক স্কুলছাত্রীকে ছুরিকাঘাতে আহত করেছে মুখোশপরা এক সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় আহত স্কুলছাত্রী মাকসুদা আক্তার বাদী হয়ে পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে দেবীদ্বার থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। ঘটনাটি ঘটে শনিবার সকাল সাড়ে ৬টায় উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামে। 

জানা যায়, একটি অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করায় বাড়ি-ঘরে হামলা, প্রতিবাদী স্কুলছাত্রী মাকসুদা আক্তার ও তার মাকে মারধর করেছে একদল সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় স্কুলছাত্রী মাকসুদা আক্তার বাদী হয়ে গত শুক্রবার দেবীদ্বার থানায় একটি সাধারন ডায়েরি (জিডি) করেন। 

ঘটনার পরদিন অর্থাৎ আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৬টায় ওই স্কুলছাত্রী প্রাইভেট পড়তে বাড়ি থেকে বের হলে মুখোশপরা এক সন্ত্রাসী পথিমধ্যে তাকে ছুরিকাঘাতে আহত করে পালিয়ে যায়। ওই ঘটনায় স্কুলছাত্রী মাকসুদা আক্তার বাদী হয়ে লক্ষিপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহিম মাস্টারের পুত্র আজাদ, সফিকুল ইসলামের পুত্র সবুজ, আ. মতিনের পুত্র পাভেলসহ পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে দেবীদ্বার থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি জানান, হামলাকারী আজাদ, সবুজ, পাভেল এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী এবং মাদকসেবী, ওরা গত শুক্রবার একজন অজ্ঞাত কিশোরীকে বাড়িতে নিয়ে আসলে তার প্রতিবাদ করেছিল স্কুলছাত্রী মাকসুদা ও তার মা। ওই ঘটনায় ওদের ওপর হামলা করে। হামলার ঘটনায় মাকসুদা আক্তার থানায় জিডি করলে পরিকল্পিতভাবে আজ শনিবার ওই হামলা চালায়।  

স্থানীয়রা আরো জানান, উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের মোখলেছুর রহমানের কন্যা অষ্টম শ্রেণিপড়ুয়া ছাত্রী মাকসুদা আক্তার (১৪) প্রাইভেট পড়ার জন্য শনিবার সকালে খলিলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে লক্ষীপুর গ্রামের ভূঁইয়াবাড়ি সড়কের মাথায় গোমতী নদী বেড়িবাঁধসংলগ্ন রাস্তায় আসার পর মুখোশপরা অজ্ঞাত এক যুবক পেছন দিক থেকে তাকে জাপটে ধরে। এ সময় ওই ছাত্রী তার হাত থেকে বাঁচার চেষ্টা করলে তাকে ছুরিকাঘাতে আহত করে, পরনের জামার বিভিন্ন অংশে কেটে গেলেও শরীরে বড়ধরনের আঘাত করতে পারেনি। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে স্কুলছাত্রী মাকসুদা একটি গর্তে পিছলে পড়ে যায়, ওখান থেকে উঠে চিৎকার করতে করতে পার্শ্ববর্তী বাড়িতে আশ্রয় নেয়। তার চিৎকার শুনে বাড়ির কর্তা আব্দুল হাকিম ভূঁইয়া ছুটে আসে এবং ওই যুবকের খোঁজে দৌড়ে আসলেও তাকে আর খুঁজে পায়নি। স্থানীয়রা আহত স্কুলছাত্রীকে দ্রুত দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। 

আহত স্কুল ছাত্রী (১৪) জানায়, ছেলেটি মুখোশ পড়া থাকলেও তার গায়ের রং কালো মাথার চুল কোকড়ানো এবং পরনে কালো প্যান্ট ও সাদা শার্ট ছিল।

শনিবার রাত ৮টায় এ ব্যাপারে দেবীদ্বার থানার এসআই রবিউল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওই ঘটনায় ভিকটিম স্কুলছাত্রী একটি অভিযোগপত্র থানায় জমা দিয়েছেন। তবে মামলা হিসেবে তা এখনো নথিভুক্ত হয়নি, বাদী হামলাকারীকে শনাক্ত করতে পারেনি। তদন্ত চলছে, মামলা প্রক্রিয়াধীন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা