kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

ভুয়া ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় সাপে কাটা যুবকের মৃত্যু

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি    

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২০:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভুয়া ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় সাপে কাটা যুবকের মৃত্যু

টাঙ্গালের মির্জাপুরে ভুয়া ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় আবু সাঈদ সিদ্দিকী নামে সাপে কাটা এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের কুড়াতলী উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত ওহাব আলী সিদ্দিকীর ছেলে।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে আবু সাঈদ সিদ্দিকী ঘুম থেকে উঠে নিজ বিছানায় পা নামিয়ে বসেন। এ সময় খাটের নীচে থাকা বিষাক্ত সাপ তার পায়ে কামড় দেয়। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে বাধন দিয়ে অসুস্থ অবস্থায় পার্শ্ববর্তী বাঁশতৈল বাজারের বাঁশতৈল ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে গেলে সেখানে ডা. আতোয়ার রহমান তাকে ইনজেকশন দেন। ইনজেকশন দেওয়ার পর শরীরের বাধন খুলে দেন ডাক্তার। এর কিছুক্ষণ পর সাঈদ নিস্তেজ হয়ে পড়লে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আবু সাঈদের চাচাতো ভাই জুয়েল সিদ্দিকী বলেন, সাপে কাটা রোগীর শরীর বেঁধে রাখলে দুই-তিন দিন বাঁচিয়ে রাখা যায়। কিন্তু ডাক্তার আতোয়ার তার ভুল চিকিৎসা করেছেন। আমরা জানি তিনি ভুয়া ডাক্তার। বাঁশতৈল ডায়াগনস্টিক সেন্টারে তিনি রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে থাকেন। পরিবারের লোকজন ডাক্তার আতোয়ারের সম্পর্কে না জেনেই সাঈদের চিকিৎসার জন্য তার কাছে নিয়ে যান। এতে ভুল চিকিৎসার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। তিনি আতোয়ারের বিচার দাবি করেন।

বাঁশতৈল ডায়াগনস্টিক সেন্টারের চিকিৎসক ডা. আতোয়ার রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করে তিনি ডাক্তার কি না জানতে চাইলে নিজেকে সাধারণ চিকিৎসক দাবি করেন। সাপে কাটা রোগীর চিকিৎসা দেওয়ার বিষয়ে বলেন, ইনসেপটা ওষুধ কোম্পানির প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রতিনিধি কফিল উদ্দিনের পরামর্শে সাঈদের শরীরে অ্যান্টিভেনম ইনজেকশন দিয়েছিলাম। এর কিছুক্ষণ পর তার অবস্থার অবনতি হলে কুমুদিনী হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।   

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা