kalerkantho

কোলে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা, দেড় বছরের শিশু হাসপাতালে ভর্তি

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৬:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোলে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা, দেড় বছরের শিশু হাসপাতালে ভর্তি

ছোট্ট শিশু। ঠিকমতো কথাও বলতে পারে না। বয়স মাত্র দেড় বছর। এ বয়সেই তাকে কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হয়েছে। নরপশুর লালসার শিকার হয়ে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার কদমবাড়ি ইউনিয়নের চৌরায়াবাড়ি গ্রামে। মঙ্গলবার সকালে শিশুটির এক আত্মীয় রাস্তায় তাকে কোলে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে বাড়িতে নিয়ে আসলে শিশুটির যৌনাঙ্গ দিয়ে রক্তপাত হলে ঘটনাটি পরিবারের লোকজন বুঝতে পেরে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এই ঘটনায় বুধবার দুপুরে রাজৈর থানায় মামলা হয়েছে।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালে গেলে শিশুটির মা ও মামা জানান, রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের চৌরাশি গ্রামের আত্মীয় সুষেণ ভক্তের ছেলে হৃদয় ভক্ত (২১) একই উপজেলার কদমবাড়ি ইউনিয়নের চৌরায়াবাড়ি গ্রামে তার এক আত্মীয় বাড়িতে বেড়াতে আসে। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে ওই আত্মীয়ের বাড়ির দেড় বছরের শিশু মেয়েটিকে নিয়ে ঘুরতে বের হয়। অনেক সময় পর আবার শিশুটিকে নিয়ে বাড়িতে আসে। এসময় শিশুটির মা তাকে কাঁদতে দেখে এবং যৌনাঙ্গ দিয়ে রক্ত পড়তে দেখে। এদিকে কোন কিছু বোঝার আগেই শিশুকে রেখে হৃদয় ভক্ত পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালেই শিশুটিকে তার পরিবারের লোকজন মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এই ঘটনায় বুধবার দুপুরে শিশুটির বাবা রাজৈর থানায় মামলা করেছে।

এই ঘটনার খবর পেয়ে মাদারীপুর মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার কণা সদর হাসপাতালে গিয়ে শিশুর খোঁজ খবর নেন। এসময় তিনি বলেন, শিশুটির ব্যাপারে চিকিৎসাসহ আইনের সহযোগিতা করা হবে। এতো ছোট শিশুকে কিভাবে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়, তা বোধগাম্য নয়। এইসব অপরাধীদের দ্রুত শাস্তি হওয়া উচিত।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, দেড় বছরের এক শিশু ভর্তি হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারবো না। হাসপাতালে গাইনি বিভাগে ডাক্তার আছেন। তিনি বলতে পারবেন।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহজাহান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এই ঘটনায় আজ (বুধবার) মামলা হয়েছে। দ্রুত আসামিকে ধরা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা