kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

যুবককে বাঁচাতে গিয়ে মারা গেলেন বৃদ্ধ

লক্ষীপুর প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যুবককে বাঁচাতে গিয়ে মারা গেলেন বৃদ্ধ

যুবকদের মারামারি থামাতে গিয়ে বৃদ্ধ বাবুল হোসেন (৬৫)  নিজে আক্রান্ত হলেন। এরপর মারপিটে ঘটনাস্থলেই তিনি ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে। মর্মান্তিক এ ঘটনা রবিবার রাত আটটার দিকে লক্ষীপুরের উত্তর হামছাদির বিজয়নগর গ্রামের। পুলিশ ঘটনায় জড়িত ৬ জনকে আটক করেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, হামলার শিকার শহীদ উল্যা নামে এক কাঠমিস্ত্রিকে বাঁচাতে গিয়ে বুকে আঘাত পান বাবুল। নারী বিষয়ক এক তর্ক নিয়ে মারামারি হচ্ছিল শহীদ ও সোহেল নামে দুজনের মধ্যে। বিজয়নগর গ্রামের আবদুল হাইয়ের ছেলে সোহেল ও একই এলাকার মৃত হোসেন আহমেদের ছেলে শহীদ পেশায় কাঠমিস্ত্রি। হাতাহাতির এক পর্যায়ে সোহেল ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। কিন্তু কিছুক্ষন পর ফিরে আসেন কয়েকজনকে সাথে নিয়ে। তারা শহীদকে এলোপাথাড়ি মারপিট করত থাকে। একই এলাকার মুরুব্বি হিসেবে বাবুল হোসেন এগিয়ে যান মারপিট থামাতে। হামলাকারীরা তাকেও কিলঘুষি মারলে বুকে আঘাত পান বাবুল। ঘটনাস্থলেই বৃদ্ধ বাবুল মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।
বাবুলের মৃত্যু সংবাদ পেয়ে স্থানীয়রা ঘিরে ধরে সোহেলসহ ৬ জনকে আটক করেন। এরপর পুলিশে খবর দেয়া হয়। পরে পুলিশে সোপর্দ করা হয় ৬ যুবককে। আহত যুবক শহীদকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

লক্ষীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, 'হামলাকারী সোহেলসহ ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। নিহত বাবুলের মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা