kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রসঙ্গ : উখিয়ায় এনজিও অফিস থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

আইওএম স্থানীয় জনগোষ্ঠীদের গৃহস্থালী সরঞ্জামাদি দিয়েছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার    

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৩:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আইওএম স্থানীয় জনগোষ্ঠীদের গৃহস্থালী সরঞ্জামাদি দিয়েছিল

কক্সবাজারের উখিয়ায় একটি এনজিও’র স্থানীয় অফিসে গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় প্রশাসনের নিরাপত্তা সংক্রান্ত পরিদর্শনের প্রেক্ষিতে শেড নামের একটি এনজিও অফিস থেকে কয়েক হাজার পিস রাম দা, ছুরি, হাতুড়ি, প্লাস, বেলচাসহ অন্যান্য দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা আইওএম এ প্রসঙ্গে জানিয়েছে, জাতিসংঘের এই সংস্থাটি দুটি স্থানীয় এনজিওকে প্রান্তিক স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে কৃষিকাজসহ নানা দৈনন্দিন কাজের জন্য সহায়তার অংশ হিসেবে গৃহস্থালী সরঞ্জামাদি দিয়েছিল।

এসব সরঞ্জামাদি শুধুমাত্র স্থানীয় জনগোষ্ঠির জন্য এবং এগুলো কোনোভাবে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য নয়। কিন্তু বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুলভাবে উপস্থাপিত হওয়ায় এটি নিয়ে প্রশাসন, গণমাধ্যম এবং সুশীল সমাজে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়।

প্রকৃতপক্ষে এসব সরঞ্জামাদি ছিল কৃষিকাজে ব্যবহার্য এবং এগুলো শুধুমাত্র স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে প্রদানের জন্য স্থানীয় এনজিওটিকে দেওয়া হয়েছিল। বিষয়টি উখিয়া উপজেলা ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসন খতিয়ে দেখে এবং পর্যাপ্ত প্রমাণাদি পাওয়া সাপেক্ষে জব্দকৃত সরঞ্জামাদি পুনরায় এনজিওটিকে ফেরত দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে গণমাধ্যম ও সুশীল সমাজে ভুল বুঝাবুঝির অবসানে আইওএম-এর পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এদিকে এলাকার লোকজন জানিয়েছে, কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের লোকজন রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের কারণে বেশ ক্ষতিগ্রস্ত। এসব ক্ষতির কারণে তাদের রাস্তা-ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ নানা অবকাঠামো সংস্কারের সহযোগিতা দরকার ছিল।

কিন্তু এসব সহযোগিতার নামে দা, খন্তি, কোদাল, বেলচা, হাতুড়ি, করাতসহ দেশীয় অস্ত্র সরবরাহ দেওয়া হচ্ছিল কেন? এলাকার লোকজন জানিয়েছেন, তারা এসব অস্ত্র কোনো এনজিও বা কোনো আন্তর্জাাতিক সংস্থার কাছে কোনো সময় দাবিও করেনি। গায়ে পড়ে কেন এসব অস্ত্র সরবরাহ দেওয়া হচ্ছে তা নিয়ে এলাকায় নানা সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা