kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অগ্নিকাণ্ডে সব হারানো চার শিক্ষার্থীর পাশে শুভসংঘ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অগ্নিকাণ্ডে সব হারানো চার শিক্ষার্থীর পাশে শুভসংঘ

ছাত্রাবাসে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় অগ্নিকাণ্ডে ভস্মীভূত হয় দুটি রুম এবং পুড়ে ছাই হয়ে যায় রুমে থাকা চার শিক্ষার্থীর বই, খাতা, টেবিল, চেয়ার, জামা-কাপড়সহ সব কিছু। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন নিয়ে গত ৩ সেপ্টেম্বর দৈনিক কালের কণ্ঠের ১৯ পাতায় 'আগুনে ছাই হলো চার ছাত্রের সম্বল' শিরোনামে প্রকাশিত হয়।

ওই রিপোর্ট প্রকাশের পর ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্রদের সহায়তায় এগিয়ে আসে দৈনিক কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। শুভসংঘের প্রচেষ্টায় রাজবাড়ীর সন্তান ফ্রান্স প্রবাসী ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলাম তার আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।

আজ বৃহস্পতিবার বিকালে দৈনিক কালের কণ্ঠের রাজবাড়ী কার্যালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের হাতে আর্থিক অনুদান তুলে দেওয়া হয়। এ সময় দৈনিক কালের কণ্ঠ শুভসংঘের সভাপতি ও রাজবাড়ী সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক সরোয়ার মার্শেদ খান স্বপন, রাজবাড়ী প্রেস ক্লাবের সভাপতি অ্যাড. খান মো. জহুরুল হক, জেলা রিপোটার্স ক্লাবের সভাপতি লিটন চক্রবর্তী, দৈনিক কালের কণ্ঠের রাজবাড়ী প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর হোসেন, রাজবাড়ী প্রেস ক্লাবের ক্রীড়া ও সাহিত্য সংস্কৃতিক সম্পাদক সাজেদ হোসেন, আমাদের রাজবাড়ী সামাজিক উন্নয়ন সংগঠনের সভাপতি নীল আকাশ, সাধারণ সম্পাদক মো. সোহেল রানা, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এস এম হিরা, সদস্য গোলাম রব্বানী, অপু চৌধুরীসহ শুভসংঘের সদস্য হাফিজুর রহমান ও রাজবাড়ী সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। 

ক্ষতিগ্রস্ত ছাত্র নিজাম উদ্দিন সরদার ও আলিমুজ্জামান আলিম জানান, তারা সব কিছু হারিয়ে বন্ধুদের ছাত্রাবাসে উঠেছেন। সেখানে কোনো রকমে জীবন-যাপন করছেন। শুভসংঘ তাদের যে আর্থিক সহয়তার ব্যবস্থা করে দিয়ে সে জন্য অর্থদাতা ও শুভসংঘের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। 

উল্লেখ্য, গত সোমবার ভোর ৪টার দিকে হঠাৎ করে রাজবাড়ী জেলা শহরের নিউ কলোনির আপন ছাত্রাবাসে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আগুনে ছাত্রাবাসের দুটি রুম পুরোপুরি ভস্মীভূত হয়। ওই রুম দুটিতে বসবাস করা রাজবাড়ী সরকারি কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র আলিমুজ্জামান আলিম, অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র নিজাম উদ্দিন সরদার, দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাসেল আহম্মেদ ও দুর্জয় রহমান কোনো রকমে বাইরে বের হতে পারলেও তাদের বই, খাতা, টেবিল, চেয়ার, জামা-কাপড়সহ তাদের সমস্ত মালামাল ভস্মীভূত হয়। দুর্জয়ের পিটের কিছুটা অংশ আগুনে পুড়ে গেছে। তিনি আহত অবস্থায় বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা