kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঘুমন্ত গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঘুমন্ত গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা

পাবনার ফরিদপুরে সাথী খাতুন (২০) নামে এক গৃহবধূকে ঘুমন্ত অবস্থায় কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার ডেমরা ইউনিয়নের পাচুরিয়াবাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সাথী ওই গ্রামের আব্দুল মজিদের মেয়ে এবং ফরিদপুর পৌর শহরের টিয়ার পাড়া-মহল্লার মিজানুর রহমানের স্ত্রী।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, প্রায় চার বছর আগে সাথীর সঙ্গে ফরিদপুর পৌর শহরের টিয়ার পাড়া-মহল্লার আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে মিজানুর সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই ওই দম্পতির মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না। এ নিয়ে প্রায়ই মিজানুর সাথীকে মারধর করত। গত দুই মাস আগে মিজানুর মারধরে আহত হয়ে সাথী স্বামীর বাড়ি ছেড়ে তার বাবার বাড়িতে চলে আসেন। এ নিয়ে তিনি আদালতে মামলাও করেন। এরই মধ্যে সাথীকে মামলা তুলে নিতে মিজানুর নানাভাবে হুমকি প্রদান করছেন বলে সাথীর পরিবারের অভিযোগ। এ অবস্থায় বুধবার রাতে খাবার খেয়ে ছোট বোনকে নিয়ে ঘরে শুতে যায় সাথী। একপর্যায়ে রাত ৩টার দিকে কে বা কারা ঘরে ঢুকে সাথীর ঘাড়ে ও গলায় কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। সাথীর গোঙানির শব্দে ছোট বোন মিমের ঘুম ভেঙে গেলে সে চিৎকার শুরু করে। এ সময় বাড়ির অন্যরা ঘরে প্রবেশ করে। কিন্তু ঘটনাস্থলেই সাথীর মৃত্যু হয়। ময়নাতদন্তের জন্য বৃহস্পতিবার সকালে সাথীর লাশ উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় ফরিদপুর থানা পুলিশ সাথীর শ্বশুর-শাশুড়িকে আটক করে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। তবে সাথীর বাবা আব্দুল মজিদ তার মেয়েকে হত্যার জন্য জামাই মিজানুরকে দায়ী করছেন।

ফরিদপুর থানার ডিউটি অফিসার এসআই আব্দুল খালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন। মামলার এফআইআর প্রস্তুত হলেই আসামিদের ধরতে অভিযান শুরু হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা