kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বেরোবিতে সাংবাদিকতা ও সাহিত্য বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বেরোবি প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৮:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেরোবিতে সাংবাদিকতা ও সাহিত্য বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) গতকাল বুধবার সাংবাদিকতা ও সাহিত্য বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংবাদ ও ফিচার লেখায় সাহিত্যপাঠ কিভাবে উপকৃত করতে পারে, অনুষ্ঠানে তা সম্পর্কে প্রাণবন্ত আলোচনা হয়েছে। অতিথি ও আলোচকের বক্তব্যে তুলে ধরা হয়েছে সাংবাদিকতা কিংবা যে কোনো পেশায় সাফল্যের পেছনে শিল্প-সাহিত্য, ইতিহাস-দর্শনসহ নানা বিষয়ের গ্রন্থপাঠের উপকারিতা ও প্রয়োজনীয়তা।

গতকাল বুধবার দুপুর ২টায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি হেয়াত মামুদ ভবনের দ্বিতীয় তলায় ২০৬ নং কক্ষে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেব আলোচনায় অংশ নেন কালের কণ্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার, কবি ও লেখক নওশাদ জামিল। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে কবি ও লেখক নওশাদ জামিল বলেন, মানুষের মনে স্বপ্নের বীজ বপন করে দেয় বই। মানুষের স্বপ্নকে সত্যি করতেও অনুপ্রাণিত করে বই। জীবনের সাফল্যের জন্য, স্বপ্নপূরণের জন্য শুধু একাডেমিক বইপত্র নয়, শিল্প-সাহিত্যসহ নানা বিষয়ের বইপাঠ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

সাহিত্য ও সাংবাদিকতা নিয়ে নওশাদ জামিল বলেন, সাংবাদিকতা ও সাহিত্য একে অপরের সঙ্গে জড়িত। সাহিত্যপাঠ একজন সাংবাদিককে নানা সহযোগিতা করে। অনুপ্রাণিত করে।  আবার সাংবাদিকতাও একজন কবি, সাহিত্যিককে নানাভাবে আন্দোলিত করে। মূলত সাংবাদিকতা ও সাহিত্য দুটিই সৃজনশীল মাধ্যম। দুটির মধ্যেই সৃজনশীল ভাবনা-চিন্তা, মননশীল রুচিবোধের সংমিশ্রণ থাকলে ভালো কিছু সৃষ্টি হবেই।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম। এ ছাড়া শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ওই বিভাগের প্রভাষক রহমতুল্লাহ রহমত। কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন ওই বিভাগসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা