kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সোনারগাঁয়ে হাসপাতাল ও বিদ্যালয়ের ফুটপাত দখল

ভোগান্তিতে রোগী ও শিক্ষার্থী

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৮:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সোনারগাঁয়ে হাসপাতাল ও বিদ্যালয়ের ফুটপাত দখল

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে সরকারি হাসপাতাল ও একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফুটপাতে হাঁটার জায়গা সহ মূল রাস্তার প্রায় অর্ধেক দখল করে নিয়েছে ফল ও কাঁচামাল চা ও মুদি দোকানীরা। ফলে ফুটপাতে পা ফেলার জো নেই। এতে একদিকে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে রোগী ও শিশু শিক্ষার্থী অন্যদিকে যানজটে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারণ পথচারীরা।

বুধবার সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বৈদ্যের বাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সীমানায় বিভিন্ন রকমের পসরা নিয়ে ফুটপাত ও ফুটপাতসংলগ্ন রাস্তার অংশ দখল করে দোকান তুলে চা-পান, রিক্সার ওয়ার্কশপ, ফল ও মুদিমালের পসরা সাজিয়ে বসেছেন।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, সোনারগাঁয়ে স্থায়ী ও অস্থায়ী প্রায় ৫ লাখ লোকের জন্য একটি মাত্র সরকারি হাসপাতাল। হাসপাতালে প্রতিদিন প্রায় হাজারের বেশী রোগী চিকিৎসা সেবা নিতে আসে। সোনারগাঁ উপজেলা সংলগ্ন কুশিয়ারা ব্রিজ পার হয়ে আনন্দ বাজার ও বৈদ্যের বাজারের ইউটান থেকে বৈদ্যের বাজার রাস্তায় হাসপাতালের পুরো সীমানা জুড়ে ছোট ছোট দোকান বসিয়েছে। ফুটপাত দখল হয়ে যাওয়ায় সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, কর্মব্যস্ত মানুষ, শিক্ষার্থী, নারী ও শিশুরা।

অন্যদিকে ৪২ নং বৈদ্যের বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ফুটপাত দখল হয়ে যাওয়ায় শিশু শিক্ষার্থীদের চলতে গেলেই সব সময় বিপাকে পড়তে হয়। পায়ে হাটার রাস্তা দখল হয়ে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে মূল সড়কেই ঝুঁকি নিয়ে পথ চলতে চলে। এতে ঘটছে দুর্ঘটনা। একই সঙ্গে বাড়ছে অস্থিরতা ও অসুস্থ হয়ে পড়া মানুষের সংখ্যা।

বিদ্যালয়ের দেয়াল ঘেষা ফুটপাত দখল হয়ে যাওয়ায়, বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিশুদের সুন্দর পরিবেশে শিক্ষাদান করতে পারছেন না বলে জানান। পারছেন না শিক্ষামূলক দেয়াল চিত্র একে শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়মুখী করার উৎসাহ দিতে।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানান, সোনারগাঁয়ের সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেয়ালগুলো শোবা বর্ধন করলেও আমাদের বিদ্যালয়ের পরিবেশ ভিন্ন। স্থানীয় প্রভাবশালীদের ভয়ে আমরা কিছু বলতে পারছি না।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার সরকার জানান, জনসাধারন যাতে নির্বিঘ্নে তাদের পায়ে হাটার পথ দিয়ে চলতে পারে সে জন্য দ্রুত ফুটপাত দখলমুক্ত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা