kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

লোহাগড়ায় আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে

পাট ব্যবসায়ীকে হাতুড়িপেটা ও ইউপি মেম্বরকে মারপিট

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাট ব্যবসায়ীকে হাতুড়িপেটা ও ইউপি মেম্বরকে মারপিট

আহত মেম্বর হাফিজুর রহমান

নড়াইলের লোহাগড়ায় আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে সৈয়দ নয়ন আলী নামে এক পাট ব্যবসায়ীকে হাতুড়িপেটা করেছে প্রতিপক্ষরা। অপর একটি ঘটনায় আধিপত্য বিস্তার করাকে কেন্দ্র করে হাফিজুর রহমান নামে এক ইউপি মেম্বরকে মারপিট করেছে প্রতিপক্ষরা।

আজ বুধবার বিকালে ওই দুটি হামলার ঘটনা ঘটেছে কাশিপুর ইউনিয়নে। আহতদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, কাশিপুর  ইউনিয়নের গন্ডব গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে মিরাজ মোল্যা ও শেখ সুলতান মাহমুদ বিপ্লবের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছিল। ওই বিরোধের জের ধরে বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে, গন্ডব গ্রামের মৃত সৈয়দ রওশন আলীর ছেলে পাট ব্যবসায়ি সৈয়দ নয়ন আলী (৩২) কে হাতুড়ি দিয়ে বেদম মারপিট করে প্রতিপক্ষ শেখ সুলতান মাহমুদ বিপ্লবের লোকজন।

মারাত্মক জখম সৈয়দ নয়ন আলী জানান, তিনি পাট ব্যবসার ১ লাখ ১২ হাজার টাকা নিয়ে মিঠাপুর বাজার থেকে নিজ বাড়ি গন্ডব আসার পথে রউফ সিকদারের বাড়ির কাছে পৌঁছালে স্বপন কাজী, ইমরান কাজী, রিদয় সিকদার, জাকারিয়াসহ ২০/২৫ জনে তাকে ভ্যান থেকে নামিয়ে হাতুড়ি দিয়ে মারপিট করে। স্থানীয় লোকজন পরে তাকে উদ্ধার করে লোহাগড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে খুলনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রতিপক্ষের লোকজন পলাতক থাকায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বর হাফিজুর রহমান (৪৮)কে মারপিট করেছে সাবেক মেম্বরের ছেলের নেতৃত্বে ১০/১৫ জন। আহত হাফিজুর জানান, বুধবার বিকালে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে গন্ডব নিজে বাড়িতে ইজিবাইক ভ্যানে আসার পথে ওই ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বর সাইফারের ছেলে শরিফুলের নেতৃত্বে রেজাউল, তারিকসহ ১০/১৫ জনে লাঠি, লোহার রড দিয়ে তাকে বেদম মারপিট করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে লোহাগড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে। প্রতিপক্ষের লোকজন পলাতক থাকায় তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

লোহাগড়া হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার ডা. দেবাশীষ জানান, সৈয়দ নয়ন আলী ও হাফিজুর রহমান রহমানের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। লোহাগড়া থানার ওসি মো. মোকাররম হোসেন জানান, দুটি ঘটনাই শুনেছি। প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা