kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ধারালো দা দিয়ে স্বামীকে কোপালেন স্ত্রী!

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধারালো দা দিয়ে স্বামীকে কোপালেন স্ত্রী!

হাসপাতালে আনন্দ দাশ

দাম্পত্য বিরোধে স্বামীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়েছেন এক স্ত্রী। দায়ের কোপে ক্ষতবিক্ষত স্বামী আনন্দ দাশকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্ত্রী শম্পা দাশের বিরুদ্ধে স্বামী নির্যাতনের অভিযোগ অনেক পুরনো হলেও রক্তারক্তির ঘটনা প্রথম। হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার জোড়ানগর গ্রামে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, জোড়ানগর গ্রামের আনন্দ দাশ ও তার স্ত্রী শম্পা দাশের দাম্পত্য কলহ পুরনো। দুই সন্তান তাদের বিরোধ কমাতে পারেনি। স্থানীয়ভাবে কয়েক দফা সালিশ বৈঠক হলেও সমাধান আসেনি। পুরুষ নির্যাতনের জোরালো অভিযোগ উঠেছে শম্পা দাশের বিরুদ্ধে। তা নিয়ে বিব্রত সকলে। সর্বশেষ স্ত্রীর নির্যাতন সইতে না পেরে আনন্দ দাশ পাঁচ মাস বাড়ির বাইরে ছিলেন। কয়েকদিন আগে বাড়ি ফিরতেই ঝগড়া শুরু হয়।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় স্বামী-স্ত্রীর কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শম্পা দাশ ঘর থেকে ধারালো দা নিয়ে হামলা শুরু করেন। আনন্দ দাশকে কুপিয়ে ক্ষত- বিক্ষত করেন। চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন আনন্দ দাশকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

পুকড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, 'শম্পা দাশ এবং আনন্দ দাশের বিরোধ অনেক পুরনো। আগেও শম্পা পিটিয়ে আহত করেছেন স্বামীকে। এ নিয়ে আমি সালিশ করেছি। আগের চেয়ারম্যান ও মুরুব্বিয়ানরাও অনেক সালিশ করেছেন। কিন্তু শম্পা দাশ কোনভাবেই আনন্দ দাশকে সহ্য করেন না। স্ত্রীর ভয়ে আনন্দ বাড়ির বাহিরে ছিলেন অনেকদিন। মুখ খুলে প্রতিবাদও করতে পারেন না। এই ঘটনা সমাজে বিরল।'

বানিয়াচং থানার ওসি রাশেদ মোবারক বলেন, 'ঘটনাটি শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা