kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ইমা হত্যায় আটক স্বামীর স্বীকারোক্তি

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২০:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইমা হত্যায় আটক স্বামীর স্বীকারোক্তি

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় অন্ত:স্বত্তা স্ত্রী ইমা বেগমকে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন জামাল উদ্দিন (২৩)। মঙ্গলবার বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের হাকিম হরিদাস কুমারের খাস কামরায় তিনি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। পারিবারিক কলহের জের ধরে তিনি স্ত্রীকে ঘুমন্ত অবস্থায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করেন বলে জানান। স্বীকারোক্তি গ্রহনের পর বিচারক তাকে জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

সূত্র জানায়, হত্যার শিকার ইমা বেগম বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউপির বড়খলা গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের মেয়ে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ইমার বিয়ে হয় বড়লেখা সদর ইউপির গঙ্গারজল গ্রামের রহিম উদ্দিনের ছেলে জামাল উদ্দিনের সাথে। যৌতুকের জন্য বিয়ের পর থেকে জামাল প্রায়ই ইমাকে মারধর করতেন। এ নিয়ে কলহ মাত্রা ছাড়ায়। সাত মাসের অন্ত:স্বত্ত্বা ইমা স্বামীকে নানাভাবে বুঝিয়ে ব্যর্থ হন। এক পর্যায়ে গত রোববার রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় ইমাকে হত্যা করেন জামাল উদ্দিন।
সোমবার ইমার লাশ উদ্ধারের পর পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্বামী জামাল উদ্দিনকে আটক করে। রাতেই ইমা বেগমের বাবা ইসলাম উদ্দিন হত্যা মামলা দায়ের করেন। তাতে প্রধান আসামি করা হয় জামালকে। সকালে তিনি স্বীকারোক্তি দিতে চাইলে পুলিশ আদালতে নিয়ে যায়।
 
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বড়লেখা থানার এসআই কৃষ্ণ মোহন দেবনাথ জানান, আসামি জামাল স্বেচ্ছায় স্ত্রী হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। এরপর তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা