kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বাইকের জন্য বন্ধুর গলায় ছুরি চালাল ওরা!

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৯:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাইকের জন্য বন্ধুর গলায় ছুরি চালাল ওরা!

সারাদিন বন্ধুর সঙ্গে মোটরসাইকেলে ঘুরে রাতে বন্ধু নাজমুল ইসলাম (১৬) গলা কেটে মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবার রাতে পাবনা ঈশ্বরদীর দিয়াড় সাহাপুরের বালুর খাদের নিকট এ ঘটনা ঘটে। আহত নাজমুল ইসলাম উপজেলার লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়নের পাকুড়িয়া শাহপাড়ার আনছার আলী মিস্ত্রির ছেলে। 

নাজমুলের বাবা আনছার আলীর বরাত দিয়ে সাহাপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার তহিদুল ইসলাম তুহিন কালের কণ্ঠকে জানান, নাজমুলের দুই বন্ধু উপজেলার পাকশী ইউনিয়নের দিয়াড় বাঘইল এলাকার রঞ্জু মাতালের ছেলে আসিফ আলী (১৬) এবং একই তুফান হোসেন (১৭) গত সোমবার নাজমুলের অ্যাপাচি আরটিআর মোটরসাইকেলে সারাদিন বিভিন্ন জায়গা ঘুরে বেড়ায়। রাত হলে পরিকল্পিতভাবে তারা দিয়াড় সাহাপুর বালুর খাদ নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে তারা নাজমুলের হত্যার উদ্দেশ্যে গলা কেটে ঝোপের মধ্যে ফেলে দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। 

মেম্বার তুহিন আরো জানান, তারা গলা কাটার পর মৃত ভেবে চলে যায়। এরপর আহত নাজমুল হামাগুড়ি দিয়ে পাশের এক বাড়িতে উঠে। তারপর পরিবারকে খবর দেওয়া হয়। রাতেই নাজমুলকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। 

ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেই সময় দায়িত্বে থাকা ডাক্তার তাসনিম তামান্না স্বর্ণা জানান, আহত নাজমুলের গলায় গভীর ক্ষত হয়ে যাওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। 

ঈশ্বরদী থানার ওসি বাহাউদ্দিন ফারুকী কালের কণ্ঠকে জানান, এই বিষয়ে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত নাজমুলের বাবা আনছার আলী রাজশাহী থেকে আসলেই অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হবে। ওসি আরো জানান, অপরাধীদের ধরতে অভিযান চলছে। খুব শিগগিরই অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে। 

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দুপুরে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটারে নাজমুলের গলার ক্ষতস্থান সেলাই কাজ চলছিল। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা