kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

গোপনে দেখা করতে গিয়ে ধরা তরুণ-তরুণী, বিয়ে হলো থানায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোপনে দেখা করতে গিয়ে ধরা তরুণ-তরুণী, বিয়ে হলো থানায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া থানায় একটি ‘অনির্ধারিত’ বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। আজ সোমবার গোপনে দেখা করতে গিয়ে ধরা পড়া তরুণ-তরুণীর বিয়ে হয়েছে থানায়। থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি), ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যসহ (মেম্বার) দুই পরিবারের লোকজন এ সময় থানায় উপস্থিত ছিলেন। বিয়ে শেষে উপস্থিত সবাইকে মিষ্টি দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের হীরাপুর গ্রামের বাছির খন্দকারের ছেলে তোফাজ্জল খন্দকারের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী নুরপুর গ্রামের লামারবাড়ির মাসুদুর রহমান মাসুমের মেয়ে মাইশা আক্তার মেঘলার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় মেঘলার সঙ্গে দেখা করতে আসে তোফাজ্জল। এ সময় আপত্তিকর অবস্থায় তাদেরকে আটক করে স্থানীয় লোকজন। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করা হয়। মীমাংসা না হওয়ার রাতেই তোফাজ্জল ও মেঘলাকে থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। সোমবার সকালে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ও উভয় পরিবারের লোকজন থানায় এসে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেন। উভয় পরিবারের সম্মতিতে দুপুরে বিয়ে দেওয়া হয়।

নিকাহ রেজিস্ট্রার মাওলানা কেফায়েত উল্লাহ জানান, ছেলে-মেয়ে দুইজনেরই বিয়ের বয়স হয়েছে। বিয়েতে উভয় পরিবারের লোকজন সম্মতি দেন। চার লাখ টাকা দেনমোহরে সোমবার দুপুরে আখাউড়া থানাতেই এ বিয়ে সম্পন্ন হয়।

আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রসুল আহমেদ নিজামী জানান, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে দুইজনকে থানায় নিয়ে আসে। দুইজনের পরিবারের লোকজন সম্মতি দেওয়ায় বিয়ে পড়ানো হয়। এ সময় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরাও উপস্থিত ছিলেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা