kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্যবসায়ীকে হত্যাচেষ্টা, তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৮:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যবসায়ীকে হত্যাচেষ্টা, তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় শহিদুল ইসলাম কবিরাজ নামে (৪০) এক ব্যবসায়ীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা চালিয়েছে প্রতিপক্ষরা। রবিবার বিকেলে পৌর শহরের টিঅ্যান্ডটি সড়কের কবিরাজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত ওই ব্যবসায়ী ঢাকায় পঙ্গু হাসপাতালে এখন মৃত্যুর সাথে লড়ছে। আহত ব্যবসায়ী শহিদুল ভাণ্ডারিয়া পৌর শহরের দক্ষিণ ভাণ্ডারিয়া মহল্লার কাদের কবিরাজের ছেলে।

হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ভাণ্ডারিয়া পৌর শহরের দক্ষিণ ভাণ্ডারিয়া মহল্লার বাসিন্দা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের প্যাকেজিং ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম কবিরাজের সাথে একই বাড়ির মিঠু কবিরাজ এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসায়িক বিরোধ চলে আসছিল। পূর্বশত্রুতার জের ধরে রবিবার বিকেলে প্রতিপক্ষ মিঠু কবিরাজ ও তার কয়েকজন সঙ্গী মিলে ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষ শহিদুল কবিরাজ এর বসতঘরের বারান্দায় প্রবেশ করে তার ওপর হামলা চালায়। এ সময় প্রতিপক্ষরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে নৃশংসভাবে কুপিয়ে ওই ব্যবসায়ীকে হত্যাচেষ্টা চালিয়ে বারান্দায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা অচেতন অবস্থায় আহত শহিদুলকে উদ্ধার করে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে তাকে চিকিৎসক বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। তার অবস্থা গুরুতর হলে রাতে তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা. ফরহাদ হোসেন জানান, তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। ডান হাত এবং ডান পা শরীর থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন।

আহত শহিদুল এর বড় ভাই মো. ওবায়দুল কবিরাজ জানান, পূর্বশত্রুতার জের ধরে হাবিবুর রহমান কবিরাজে ছেলে মিঠু কবিরাজ শহিদুলকে হত্যার চেষ্টা চালায়। ভাইয়ের অবস্থা এখন আশঙ্কাজনক। সে মুত্যুর সাথে লড়ছে।

এ ব্যাপারে ভাণ্ডারিয়া থানার ওসি এস এম মাকসুদুর রহমান বলেন, এ হামলার ঘটনায় আহত ব্যবসায়ীর ভাই মো. নজরুল কবিরাজ বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে আজ সোমবার ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত আসামুইদের গ্রেপ্তারে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা