kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সোনারগাঁয় লাফার্জ হোলসিম জেটিতে জাহাজডুবি

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৮:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সোনারগাঁয় লাফার্জ হোলসিম জেটিতে জাহাজডুবি

ফাইল ফটো

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মেঘনা নদীর তীরে অবস্থিত লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ এর নিজস্ব জেটিতে একটি পণ্যবাহী জাহাজডুবির খবর পাওয়া গেছে। এমভি মরিয়ম জুসি-২ জাহাজটি ৭৭৫ মেট্টিকটন ফ্লইঅ্যাস সহ গত ৩০ আগস্ট শুক্রবার দুপুরে কম্পানির নিজস্ব জেটিতে তলিয়ে যায়।

জাহাজের মাস্টার সায়েব আলী জানান, ১৯ আগষ্ট কলকাতা থেকে ৭৭৫ মেট্টিকটন ফ্লাইএ্যাশ বোঝাই করে জাহাজটি ৩০ আগস্ট মেঘনায় পৌছায়। জাহাজটি মতলব উপজেলার মোহনপুরের কোন এক ডুবোচরে আঘাত হানতে পারে। পরে সকাল বেলা জাহাজ ছিদ্র হয়ে পানি উঠতে দেখা যায়। বিষয়টি সাথে সাথে জাহাজের মালিক শেখ ব্রাদার্সের জসীম সাহেব এবং লাফার্জ হোলসিম কোম্পানীর লজিষ্টিক বিভাগকে জানাই। লজিস্টিক বিভাগ থেকে নিশ্চিত করা হয়, জাহাজটি জেটিতে পৌছাতে পারলে দ্রুত মাল আনলোড করা হবে। কিন্তু জাহাজটি জেটিতে পৌছানোর প্রায় আড়াই ঘন্টা পর ডুবে যায়।

তিনি বলেন, এতে আমাদের বড়রকম ক্ষতি হয়েছে। জাহাজে থাকা খাদ্য দ্রব্য, নাবিকদের মোবাইল সহ কোন কিছুই উদ্ধার করতে পারি নাই।

এ ব্যাপারে লাফার্জ হোলসিম এর শ্রমিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি হাজী মাইনউদ্দিন জানান, এ জাহাজের পূর্বে দুটি জাহাজ আনলোড করছিল। তাই আমরা এটি আনলোড করতে পারি নাই।

লাফার্জ হোলসিম বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ জানায়, গত শুক্রবার সকালে মেঘনাঘাটে ফ্লাইঅ্যাশ বহনকারী এমভি মরিয়ম জুসি-২ পৌঁছায়। তখন সেই জাহাজে পানি উঠছিল। মাস্টারের ভাষ্যমতে, আগের দিন জাহাজটি ডুবোচরে আঘাত পেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয় এবং সকালে সে জাহাজে পানি উঠতে দেখে। এভাবেই সে জাহাজটিকে মেঘনা ঘাটে নিয়ে আসে। জাহাজটিকে ভাসিয়ে রেখে নিরাপদে মালামাল সরিয়ে নেয়ার সর্বাত্মক চেষ্টা করা হয়। এতে প্রায় ১৭ লাখ টাকা মূল্যের ফ্লাই অ্যাশ ছিল।

জাহাজটি উদ্ধারের ব্যাপারে জাহাজের নাবিক সায়েদ আলী জানান, এ ব্যাপারে কয়েকটি উদ্ধারকারী কোম্পানির সাথে কথা হচ্ছে। চুক্তিপত্র সম্পন্ন হলে আগামীকাল (আজ) থেকে উদ্ধার কার্যক্রম চলবে।

সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, এ ব্যাপারে আমাদের কেউ কিছু জানায়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা