kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

জাল নিবন্ধন সনদে শিক্ষকতা, প্রভাষক গ্রেপ্তার

নোয়াখালী প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাল নিবন্ধন সনদে শিক্ষকতা, প্রভাষক গ্রেপ্তার

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার হাতিয়া ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক শাহিদা আক্তার রুবিকে জাল নিবন্ধন সনদের মাধ্যমে শিক্ষকতা করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল রবিবার সকালে জেলা শহরের নোয়াখালী সুপার মার্কেটের সামনে থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শাহিদা আক্তার রুবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ের প্রভাষক ও হাতিয়ার চর কৈলাশ গ্রামের কে এম ওবায়েদুল্যাহ্ বিপ্লবের স্ত্রী। 

জানা যায়, শাহিদা আক্তার বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের ২০১০ সালের পরীক্ষার ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিষয়ের একটি জাল সনদ প্রস্তুত করে ২০১২ সালে কলেজটিতে প্রভাষক পদে যোগ দেন। পরে এমপিওভুক্ত হয়ে ২০১২ সালের ১ নভেম্বর থেকে ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত বেতন-ভাতা বাবদ পাঁচ লাখ ৩৮ হাজার ৯৭৫ টাকা উত্তোলন করেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের শিক্ষা পরিদর্শক টুটুল কুমার নাগ এবং অডিট অফিসার গোলাম মূর্তজা ২০১৫ সালের ৩ ডিসেম্বর কলেজটি নিরীক্ষা করলে বিষয়টি ধরা পড়ে।

নোয়াখালী দুদকের সহকারী পরিচালক সুবেল আহমেদ বলেন, ‘আমরা অনুসন্ধানে শাহিদা আক্তার রুবির জাল নিবন্ধন সনদ এবং জালিয়াতির মাধ্যমে পাঁচ লাখ ৩৮ হাজার ৯৭৫ টাকা আত্মসাত্ করেছেন বলে প্রমাণ পেয়েছি। এ অভিযোগে গত ২৯ আগস্ট তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। তাঁকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।’  

হাতিয়া ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ সামিউল হক সাজু জানান, নিবন্ধন সনদ জালের অভিযোগে দুই বছর ধরে শাহিদা আক্তার রুবির বেতন-ভাতাদি দেওয়া বন্ধ রাখা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা