kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

লক্ষীপুরে শিক্ষকের যৌন হয়রানি প্রমাণিত

লক্ষীপুর প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লক্ষীপুরে শিক্ষকের যৌন হয়রানি প্রমাণিত

লক্ষীপুর কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের (টিটিসি) শিক্ষক লিটন চন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। নবম শ্রেণির পাঁচ ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তিনি নির্যাতন করেন বলে অভিযোগ ছিল। শিক্ষকের এ অপরাধের বিষয়টি তদন্তকালে প্রমাণিত হয়েছে বলে জানান প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মাহবুবুর রশিদ তালুকদার।

সূত্র জানায়, অভিযোগের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান ও প্রতিষ্ঠানের উপাধ্যক্ষ মির্জা ফিরোজ হাসান শনিবার সন্ধ্যায় প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি বলেন, 'তদন্ত চলাকালে পাঁচ ছাত্রী, তাদের অভিভাবক ও স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। তাদের বক্তব্যসহ বেশ কিছু প্রমাণে শিক্ষক লিটনের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়েছে।'
 
জানা গেছে, শিক্ষক লিটন কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সামনে একটি ঘর নিয়ে নবম ও দশম (ভোকেশনাল) শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়াতেন। খাতায় নম্বর বেশি দেয়ার লোভ ও পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫ শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়ন করেন। এসব ঘটনায় ১৯ আগষ্ট অভিযুক্ত শিক্ষক লিটনের বিচার চেয়ে অধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ জমা হয়। পরদিন প্রতিষ্ঠানের উপাধ্যক্ষ মির্জা ফিরোজ হাসানকে আহবায়ক, চীফ ইনস্ট্রাক্টর ইলেকট্রনিক্স আরিফুর রহমান ও লাভলী ত্রিপুরাকে সদস্য করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। নির্দেশনা অনুযায়ী ১০ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত করে তারা অধ্যক্ষের কাছে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন।

এদিকে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর শিক্ষক লিটনকে কর্তৃপক্ষ ছুটিতে পাঠানোর ঘটনায় অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এটা তাকে রক্ষার কৌশল কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা