kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সাম্প্রতিক বন্যায় উলিপুরে ১৫ কিলোমিটার পাকা সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৮:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাম্প্রতিক বন্যায় উলিপুরে ১৫ কিলোমিটার পাকা সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত

কুড়িগ্রামের উলিপুরে সাম্প্রতিক ভয়াবহ বন্যায় প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৬টি ব্রিজ-কালভার্টসহ প্রায় ১৫ কিলোমিটার পাকা সড়ক সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া ব্রহ্মপুত্র নদ বিচ্ছিন্ন ভারত সীমন্তবর্তী সাহেবের আলগা ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এসব ব্রিজ-কালভার্ট ও গ্রামীণ অবকাঠামো দ্রুত নির্মাণ করা না হলে উপজেলার লাখ লাখ মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হবে।

উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, সাম্প্রতিক বন্যায় উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের চুনিয়ারপাড় থেকে উপজেলা সদরগামী সড়কের ২টি ব্রিজ, দলদলিয়া ইউনিয়নের পাতিলাপুর ব্রিজ, মণ্ডলের হাট থেকে চিলমারী গামী সড়কে ২টি ব্রিজ, হাতিয়া ইউনিয়নের অনন্তপুর ব্রিজসহ সাহেবের আলগা ইউনিয়নের সাথে বিওপি ক্যাম্পগামী সড়কটির দুইস্থান ভেঙে গেছে। এসব স্থানে নতুন করে ব্রিজ নির্মাণ করতে প্রায় ৬ কোটি টাকা ব্যয় করতে হবে। এ ছাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদগামী গুরুত্বপূর্ণ প্রায় ১৫ কিলোমিটার পাকা সড়ক পুনঃনির্মাণ করতে প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয় হবে।

এদিকে ব্রহ্মপুত্র নদ বিচ্ছিন্ন ভারত সীমন্তবর্তী সাহেবের আলগা ইউনিয়নে প্রায় ৩ সপ্তাহ স্থায়ী বন্যার পানির তীব্র স্রোতে কাঁচা-পাকা সড়ক, ব্রিজ কালভার্ট ও বাঁধের রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থার নাজুক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

সাহেবের আলগা ইউনিয়নের বারেক মোল্লা, আকবার হোসেনসহ অনেকে জানান, আগামী বন্যা আসার পূর্বে আনন্দবাজার নামকস্থানের দুই পাশের দুটি ব্রিজ নির্মাণ না করলে সাহেবের আলগার ইউনিয়নের প্রায় ২’শ একর জমিসহ পার্শ্ববর্তী রৌমারী উপজেলার শৌলমারী ইউনিয়নের প্রায় ৫’শ একর আবাদী জমি নদি গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে।

সাহেবের আলগা ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিক মণ্ডল জানান, সাম্প্রতিক ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা-ঘাট ও অবকাঠামো দ্রুত নির্মাণ করা না হলে ইউনিয়নবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার মো. সিরাজুদৌলা বলেন, বন্যাকবলিত এলাকাগুলোর বেশির ভাগ কাঁচা-পাকা সড়কসহ ব্রিজ-কালভার্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বরাদ্দ আসলে দ্রুত সংস্কার করা হবে।

উপজেলা প্রকৌশলী মো. নুরুল ইসলাম বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পাকা রাস্তা ও ব্রিজ-কালভার্টের তালিকা তৈরি করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। বরাদ্দ পেলে কাজ শুরু করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা