kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

আসামে এনআরসির পর বিয়ানীবাজার সীমান্তে বিজিবির সতর্ক অবস্থান

বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৩:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আসামে এনআরসির পর বিয়ানীবাজার সীমান্তে বিজিবির সতর্ক অবস্থান

ফাইল ফটো

ভারতের আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা (এনআরসি) প্রকাশের পর সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার সীমান্তে নজরদারি বাড়িয়েছে সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিবি)। বিজিবির পাশাপাশি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশও।

ভারতের নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়া ভারতীয়রা যাতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে তাই নজরদারি বাড়ানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

গত শনিবার আসামের বহুল আলোচিত এই নাগরিক তালিকা প্রকাশিত হয়। তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ১৯ লাখ ভারতীয়। এনআরসি প্রকাশের ফলে এরা বস্তুত রাষ্ট্রহীন হয়ে পড়লেন। তবে বাদ পড়ারাও ১২০ দিনের মধ্যে আপিলের সুযোগ পাবেন।
ভারতের সরকার না বললেও দল হিসেবে বিজেপি এদের বাংলাদেশের নাগরিক বলে আসছে অনেকদিন ধরেই। সীমান্ত এলাকা সুরক্ষিত রাখতে এবং অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিয়ানীবাজার-বড়লেখায় আসাম সীমান্তে বিজিবি টহল জোরদার করেছে।

এনআরসি তালিকা প্রকাশের দিনক্ষণ আগে থেকে জানা থাকায় সীমান্ত এলাকায় পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে রাখে বিজিবির দায়িত্বশীলরা। আসামের সাথে স্থল ছাড়াও রয়েছে নদী ও পাহাড়ি অঞ্চল। বিয়ানীবাজার উপজেলার দুবাগে বড়গ্রাম, শেওলা স্থল বন্দর, গজুকাটা হয়ে মুড়িয়া ইউনিয়নের নওয়াগ্রাম পর্যন্ত ভারত সীমান্ত রয়েছে। একই সাথে বড়লেখা, পাথারিয়া, শাহবাজপুর, বোবারতল লাঠিটিলা এলাকা পর্যন্ত ভারত সীমান্ত বিস্তৃত।

বিয়ানীবাজার ৫২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফয়জুর রহমান এসপিপি, পিএসসি এ বিষয়ে কালের কণ্ঠকে বলেন, আগে থেকেই দিনক্ষণ জানা থাকায় আমরা সেরকম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। সীমান্তে অতিরিক্ত টহল দেয়ার পাশাপাশি বিজিবিকে আরো সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। বিশেষ করে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে টহল জোরদার করা হয়েছে। বিয়ানীবাজার উপজেলার সীমান্ত অংশ ছাড়াও বড়লেখা ও জুড়ি এলাকার সীমান্তেও একই রকম টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা