kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সিলেটে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত

বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১২:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিলেটে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত

ছবি প্রতীকী

সিলেটের বিয়ানীবাজারে পুলিশের সাথে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন ‘ডাকাত’ নিহত হয়েছেন।

রবিবার ভোরে শেওলা সেতু এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা পালিয়ে যাওয়ার পর পুলিশ মিসবাহ নামের এক ডাকাতের লাশ উদ্ধার করে। নিহত ডাকাত সরদার মিসবাহ উদ্দিনের বাড়ি জকিগঞ্জ উপজেলার শরিফাবাদ এলাকার রোহার সাঙ্গন। তিনি একই এলাকার আব্দুল মালিক ছেলে।

পুলিশ শনিবার তাকে জাফলং এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। তার বিরুদ্ধে বিয়ানীবাজার শিকারপুর এলাকায় ডাকাতির মামলা রয়েছে। শনিবার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে ডাকাতির কথা স্বীকার করে এবং তার কাছে অস্ত্র রয়েছে- সেকথা পুলিশকে জানায় ডাকাত মিসবাহ। স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে পুলিশ অস্ত্র উদ্ধারে দুবাগের শেওলা সেতু সংলগ্ন এলাকায় মিসবাহকে নিয়ে গেলে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা তার সহযোগী ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোঁড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে ঘটনাস্থলে ডাকাত মিসবাহ নিহত হয় এবং অন্য ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, অত্যাধুনিক কাটার যন্ত্র ও প্রচুর রামদা উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়, ডাকাত সরদার মিসবাহর বিরুদ্ধে বিয়ানীবাজার থানাসহ একাধিক থানায় আটটি মামলা রয়েছে। ২টি অস্ত্র আইনে, একটি ডাকাতি প্রস্তুতি এবং ৫টি ডাকাতি মামলা রয়েছে বন্দুক যুদ্ধে নিহত মিসবাহ উদ্দিনের বিরুদ্ধে। সে বিয়ানীবাজার থানার শিকারপুর এলাকার ডাকাতি মামলার অন্যতম আসামী। শনিবার সিলেটের জাফলং এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) জাহিদুল হক বলেন, অস্ত্র উদ্ধারে ডাকাত মিসবাহকে নিয়ে শেওলা সেতু এলাকায় অভিযানে গেলে সেখানে অবস্থান নেয় একদল ডাকাত পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশ পাল্টা গুলি ছুঁড়লে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় আমাদের কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ডাকাত মিসবাহ উদ্দিনের গুলিবিদ্ধ লাশ এবং আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশি অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা