kalerkantho

শ্রীমঙ্গলে তুচ্ছ ঘটনায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি   

২৬ আগস্ট, ২০১৯ ১২:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্রীমঙ্গলে তুচ্ছ ঘটনায় তরুণকে পিটিয়ে হত্যা

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে মনির হোসেন (২২) নামে এক তরুণকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় মনিরের সঙ্গে থাকা জহির মিয়া নামের অপর এক তরুণ গুরুতর আহত হন। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার (২৫ আগস্ট) রাত সাড়ে ৯টায় উপজেলার ফুলছড়া চা বাগানে। ঘটনার প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভকালে বিক্ষোভকারীরদের ইটের আঘাতে আরো ছয়জন আহত হন। আহতদের মধ্যে একজন পুলিশ সদস্যসহ ব্যবসায়ী সমিতির দুই সদস্য রয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ পাঁচজনকে আটক করেছে। 

মনির হোসেন শ্রীমঙ্গল উপজেলার আশীদ্রোণ ইউনিয়নের মুসলিমবাগ গ্রামের আকিল মিয়ার ছেলে। তিনি শহরের মৌলভীবাজার সড়কের মিদাদ শপিং সেন্টারের একটি দোকানের কর্মচারী ছিলেন। 

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রবিবার রাতে মনির ও জহির ফুলছড়া চা বাগানে ঘুরতে যান। বাগানের বাজারে ঝালমুড়ি কিনে খাওয়ার সময় ফুলছড়া চা বাগানের কয়েকজন শ্রমিকের সঙ্গে মনিরের ঝগড়া বাঁধে। বাকতিণ্ডার একপর্যায়ে মনির ও জহিরকে চা শ্রমিকরা বেধড়ক পেটায়। পরে তাদের দুজনকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তরের পথে মনির মারা যান।

এদিকে ঘটনার খবর মনিরের গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত গ্রামবাসী রবিবার রাত ১১টায় শহরের কালীঘাট রোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এ সময় ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাত ১২টার দিকে পুলিশ ও ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ বিক্ষোভকারীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। বিক্ষোভকারীদের সড়ক থেকে সরানোর চেষ্টা করলে বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভকারীদের ইটের আঘাতে পুলিশ সদস্য সমর বিকাশ চাকমা এবং শ্রীমঙ্গল ব্যবসায়ী সমিতির সদস্য অজয় সিংহ ও আমজাদ হোসেন বাচ্চু আহত হন। আহতদের মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় রবিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুলিশ পাঁচজনকে আটক করেছে।

শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা জানান, পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার কারণ জানতে তদন্ত চলছে। হত্যার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা